খবরাখবর প্রথম পাতা

ফের মুখ্যমন্ত্রী বিঝিয়ে দিলেন বাংলায় কর্মনাশা বনধের মাধ্যমে প্রতিবাদ করা যাবে না, বামেদের ডাকা বন্ধ মুখ থুবড়ে পড়ল

অম্বর ভট্টাচার্য, তকমা, কলকাতা, সোনারপুর, ৮ই জানুয়ারি ২০১৯ ঃ   বামেরা কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে সারা ভারত বন্ধের ডাক দিয়েছিল আজ। কিন্তু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি আগেই ঘোষণা করেছেন রাজ্যে বনধের মাধ্যমে কোন প্রতিবাদ করা যাবে না। যারা বিরোধিতা করবেন তাদের জনজীবন স্বাভাবিক রেখেই প্রতীকী প্রতিবাদ করতে হবে। তাই বামেদের ডাকা বনধের মোকাবিলা করতে সারা রাজ্যে প্রশাসনকে সজাগ থাকার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেইমত সারা রাজ্যে প্রচুর পরিমানে পুলিশ মতায়ন করা হয়েছে এবং পরিবহণের দিকে নজর দিয়ে সরকারি বাস চালানো হয়েছে। যাদবপুর এলাকায় সুজন চক্রবর্তীর নেতৃত্বে মিছিল হয় এবং জোর করে বনধ করার উদ্দেশ্যকে নস্যাৎ করে দিয়েছে পুলিশ প্রশাসন।বামেদের গুটিকয়েক নেতা ও সমর্থকদের নিয়ে করা মিছিল পুলিশ রাস্তায় নেমে মিছিল ছত্রাকার করে দেয়। সুকান্ত সেতু, যাদবপুর থানা মোড়, ঢাকুড়িয়া ব্রীজের উপর বামেরা বিক্ষিপ্তভাবে যান চলাচল অচল করার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়েছে। তারা স্কুল পড়ুয়াদের রাস্তায় আটকে দিলে পুলিশ তাদের নির্বিঘ্নে স্কুলে যাওয়ার ব্যবস্থাও করে দেয়। বামেদের জোর জুলুমের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে রাস্তায় নেমেন কলকাতা কর্পোরেশনের ১০৫ নং ওয়ার্ডের পুরপিতা তরুণ মন্ডল। কিন্তু বামেদের যে লাল দূর্গ সেই বাঘাযতীন ও গাঙ্গুলি বাগান এলাকায় জনজীবন ছিল স্বাভাবিক। অন্যদিকে সোনারপুর উত্তর বিধানসভায় বামেদের তেমন রাস্তায় নামতে দেখা যায় নি। যদিও সর্বত্র নরেন্দ্রপুর থানার নজর ছিল। গোটা সোনারপুর উত্তর বিধানসভায় জনজীবন সহ বাজারহাট খোলা ছিল।গড়িয়া স্টেশন এলাকায় বামেরা একটা ছোট মিছিল নিয়ে এলে তা তেমন প্রভাব ফেলতে পারে নি। এক কথায় বামেদের ডাকা বনধ ব্যর্থ করে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

Leave a Reply