You cannot copy content of this page

অস্তিত্বের খোঁজে কোলাহলের “বেওয়ারিশ”, এখান থেকে অনেক কিছু পেয়েছি, এখানেই ফিরিয়ে দিতে চাই : নাইজেল

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ৩০শে জুলাই ২০১৯ : অভিনেতা নাইজেলের উদ্যোগে এর আগে কোলাহল পতিতাদের নিয়ে নিবেদন করে “ঝড়াফুলের রূপকথা”। এবার সেই নাইজেল নেশারুদের নিয়ে আবার নাটক মঞ্চন্থ করতে চলেছে ২রা আগস্ট বেহালা শরৎ সদনে ও ১৫ই আগস্ট তপন থিয়েটারে। এব্যাপারে নাইজেল বলে, কোলাহল এমন একটা সংস্থা যারা এধরনের সমাজের পিছিয়ে থাকা মানুষ অথবা আড়ালে থাকা মানুষদের নিয়ে থিয়েটার থেরাপির মাধ্যমে কাজ করে।আমরা চাই তারা তাদের প্রতিভাকে মানুষের সামনে তুলে ধরুক। আমার প্রথমবারের উদ্যোগ ছিল পতিতাদের নিয়ে। সেই উদ্যোগ সার্থক হতেই এবার যারা নেশা করে তাদের নিয়ে কাজ শুরু করেছিল এটা খুবই কঠিন কাজ কারণ এই মানুষেরা নিজেদের মর্জিতে চলে। এধরনের কাজের মাধ্যমে আমি সমাজে সচেতনতা বাড়াতে চাই। এই দুটো নাটক ছারাও আমরা আগে এধরনের অনেক নাটক মঞ্চস্থ করেছি সমাজের বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষদের নিয়ে। কোলাহল থিয়েটার ওয়ার্কশপের সাথে যারা যুক্ত আছেন তারা হলেন প্রাজনা দত্ত, গিরিশ অ্যাঞ্জেলো মুখার্জি সহ আরও চারজন। আর আমি এই সংস্থার সভাপতি। আমাদের এবারের পরিবেশন “বেওয়ারিশ” যা লিখেছেন মলয় ব্যানার্জি, নির্দেশনা করেছেন অভিজিৎ অনুকামিন। এই কাজ যিনি সব দিক থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি হলেন আলিয়ানা রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারের কর্নধার অভিজিৎ রায়। এই নাটকে যারা অংশগ্রহণ করেছেন তারা সকলেই কোন ভাবে নেশার সাথে যুক্ত এবং তাদের হোমে রেখে চিকিৎসা চলছে। নাটকের মূল গল্প হল একটা বাস কলকাতা থেকে বিহার যাচ্ছিল এবং রাস্তায় এক ভয়াবহ দুর্ঘটনায় ২৬ জনের মৃত্যু হয় যার মধ্যে ৬ জনের কোন পরিচয় পাওয়া যায় নি অর্থাৎ এই ৬ জন বেওয়ারিশ।

কিন্তু আমার কথা হল আমরা যখন জন্মগ্রহণ করি তখন আমরা একপ্রকার বেওয়ারিশ হিসেবে আসি আর যখন চলে যাই তখনও বেওয়ারিশ হিসেবে চলে যাই।মাঝে শুধু থেকে যায় আমাদের কাজ। কিন্তু আমরা সকলে চাই নিজেদের একটা পরিচয় তৈরি করতে আর লড়াইটা সেখানেই। নাটকে অভিনয় করেছেন শুভাশিস খামারু, অভিজিৎ অনুকামিন, অভিজিৎ রায়, জিনিয়া নন্দী সহ বিভিন্ন নেশা ছাড়ানোর হোম থেকে নেওয়া কিছু শিল্পীরা।নাটকের আবাহ সঙ্গীতে আছেন বন্ধন মিশ্র।নাইজেল আরও বলেন, আমি সকলকে অনুরোধ জানাবো এই শিল্পীদের পাশে থেকে উৎসাহ দেওয়ার জন্য একবার নাটক দেখতে আসে। আমি চাই সকলের সহযোগিতায় এই মানুষগুলো আবার সমাজের মূল স্রোতে ফিরে আসুক। আমিও এই সমাজ থেকে অনেক কিছু পেয়েছি তাই আমি চাই এই সমাজকে কিছু ফিরিয়ে দিতে যাতে সমাজটা আরও সুন্দর হয়ে ওঠে। প্রচারে : রিদ্যম এন্টারটেন্মেন্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *