You cannot copy content of this page

গড়িয়ায় করোনার মধ্যেও তৃণমূলের উদ্যোগে রাখি বন্ধন উৎসবের আকার ধারণ করল

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ৩রা আগস্ট ২০২০ : কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উদ্যোগে ভারত ভাগের চক্রান্তের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন। সর্ব ধর্ম সমন্বয়ে রাখি উৎসব সূচনা হয় ১৯০৫ সালে। আর আজ এই করোনা পরিস্থিতিকে মোকাবিলা করতে এই উৎসবে রাখির সাথে মাস্ক তুলে দেওয়ার কথা বলেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। সেই নির্দেশ পালন করে আজ গড়িয়া স্টেশনে ট্যাক্সি স্ট্যান্ডে আই এন টি টি ইউ সি, তৃণমূল যুব কংগ্রেসের উদ্যোগে রাখি বন্ধন উৎসবের আকার ধারণ করেছিল।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক নেতা পিন্টু দেবনাথ, যুব নেতা পাপাই দত্ত, জয়হিন্দ বাহিনীর গড়িয়া টাউনের সভাপতি অরিন্দম দত্ত, ছাত্র নেতা সমরজিত ব্যানার্জি এবং সকলের মধ্যমণি ছিলেন রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার প্রশাসক ও সি আই সি নজরুল আলি মণ্ডল, সুকান্ত মন্ডল সহ অনেকে।কিন্তু যদিও মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সামাজিক দুরত্বের কথা বলেছেন কিন্তু এই উৎসবে তার বাধ ভেঙে গিয়েছিল। পথযাত্রী, অটোচালক, ট্যাক্সিচালক, বাসচালক, রিকসাচালক ও দলীয় কর্মী ও নেতাদের রাখি বেঁধে দেওয়া হয় সাথে দেওয়া হয় একটা করে মাস্ক ও ক্যাডবেরি।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নজরুল আলি মন্ডল, পিন্টু দেবনাথ, সমরজিত ব্যানার্জি। সকলের বক্তব্যের মধ্যে উঠে আসে একসময় ভারতকে অস্থির করে তুলেছিলেন ইংরেজ শাসক আর আজ এই করোনা পরিস্থিতিতে ভারতকে অস্থির করে তুলেছে কেন্দ্রে থাকা বিজেপি সরকার। ইংরেজ সরকার ভারতে ধর্মের মধ্যে বিভেদ আনার চক্রান্ত করেছিলেন আর বর্তমানে কেন্দ্রে থাকা বিজেপি সরকার সেই ধর্মের বিভাজনে মেতেছেন। সেদিন ইংরেজ সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন রবি ঠাকুর আর আজ বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছেন মমতা ব্যানার্জি। একদিন এই বাংলার মমতা ব্যানার্জি ভারতের পথ চলার দিশারী হবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *