You cannot copy content of this page

বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মী সংগঠনের ফোরামের নামে সব্যসাচী দত্ত-র বিবৃত্তির ভিত্তিতে সংবাদমাধ্যম বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ পরিবেশনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সল্টলেক, ১১ই জুলাই ২০১৯ : ৯ই জুলাই সংবাদপত্রে একটি খবরের শিরনাম নিয়ে যথেষ্ট উত্তেজিত হয়ে ওঠে কমন ফোরাম অফ ইলেক্ট্রিসিটি এমপ্লইজ সংগঠনের নেতৃত্বরা। সেই শিরনামে ছিল “১৮ সংগঠনের বিদ্যুৎকর্মীর ফোরামের নেতৃত্বে সব্যসাচী”।এর পরিপ্রেক্ষিতে তারা বলেন বিধাননগর পৌরপ্রধান সব্যসাচী দত্ত সংবাদমাধ্যম এবিপি আনন্দ ও ক্যালকাটা নিউজের নিকট যে বিবৃতি প্রদান করেন যে তার নেতৃত্বে বিদ্যুৎ দপ্তরের ১৮টি সংগঠন এক হয়ে তার নিকট আস্থা প্রদান করেছে তা সর্বৈব মিথ্যে, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।এবং এই সংবাদের সত্যতা যাচাই না করে তা প্রচারিত করে সংবাদমাধ্যম আমাদের মধ্যে এক বিভ্রান্তি ছড়িয়ে দিয়েছে। এই বিবৃতি কমন ফোরাম অফ ইলেক্ট্রিসিটি এমপ্লইজ এর চেয়ারম্যান অজয় দাস মহাপাত্র ও ১৮টি সংগঠনের সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে বিদ্যুৎ দপ্তরের এক সাংবাদিক সম্মেলন করে তীব্র প্রতিবাদ জানায়। তিনি বলেন, গত ৩রা জুলাই ১৮টি সংগঠনের স্বতঃস্ফুর্ত উদ্যোগে গঠিত কমন ফোরাম অফ ইলেক্ট্রিসিটি এমপ্লইজ তার গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী একটি যৌথ নেতৃত্বাধীন ফোরাম, যার স্টিয়ারিং কমিটিতে একজন চেয়ারম্যান, ২ জন আহ্বায়ক এবং ১৮টি সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বা তাদের মনোনীত প্রতিনিধিদের (যারা বিদ্যুৎকর্মী) নিয়ে একটি ফোরাম গঠিত হয় যা শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন, সংবহন, উন্নয়ন এবং ডি পি এল-এর স্থায়ী কর্মীদের দীর্ঘদিনের বকেয়া ২৯% মহার্ঘভাতা এবং উপরোক্ত সংস্থাগুলির কর্মীদের বেতনবৃদ্ধির জন্য জন্য রেমুনারেশন কমিটির একটা দাবি সামনে রাখা হয়েছিল। এই ১৮টি সংগঠন সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক। কিন্তু বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম যেভাবে সব্যসাচী দত্ত-র কথা প্রচার করেছে তা আমাদের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে। সংবাদমাধ্যমের উচিত সংশ্লিষ্ট সংগঠনের সাথে যোগাযোগ করে সত্যতা যাচাই করে সংবাদ পরিবেশন করা, তা না করে বিভ্রান্তি ছড়ানো কাম্য নয়। সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক শিলাদিত্য সেনগুপ্ত ও সুজিত সাহা জানান, আমরা সংবাদমাধ্যমগুলোর কাছে অনুরোধ রাখবো আমাদের বিষয় যদি কোন সংবাদ পরিবেশনের আগে আমাদের চেয়ারম্যান অজয় দাস মহাপাত্রের সাথে যোগাযোগ করে সত্যতা যাচাই করা হয়। এই ভুল খব পরিবেশনের কারণে আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছি যাতে যে ভুল খবর পরিবেশিত হয়েছে ফের তার সত্যতা যাচাই করে এবং সংশোধনী সংবাদ প্রচার করা হয় তার দাবি জানাচ্ছি। ইচ্ছাকৃত ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সংবাদমাধ্যমকে ব্যবহার করে সংগঠনের সদস্যদের মনোবল ভেঙে দেওয়ার একটা চক্রান্ত করা হচ্ছে যার সাথে সংবাদমাধ্যমও অতপ্রতভাবে যুক্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *