You cannot copy content of this page

নন্দীগ্রামে অধিকারী পরিবারের দাপট এতটাই যে ৪০টা বুথে এজেন্ট খুঁজে পায় নি, আবার মমতাকে হারাচ্ছে?

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ৩রা এপ্রিল ২০২১ : রাজ্যের সব মিডিয়া প্রচার করছে মেদিনীপুর মানেই অধিকারী পরিবার আর নন্দীগ্রামে এখনও শুধুমাত্র অধিকারী পরিবারের দাপট আছে।তর্কের খাতিরে যদি তাই ধরে নেওয়া হয় তবে গত ১লা এপ্রিল দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে নন্দীগ্রামে দাঁড়িয়ে বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী নিরাপত্তা আত্মবিশ্বাসের অভাব এতটাই তলানিতে গিয়ে ঠেকেছিল যে শুভেন্দু বলতে বাধ্য হয়েছিল মমতা নিজে বুঝতে পেরে গেছে নন্দীগ্রামে হার নিশ্চিত। এটা কি তিনি মমতাকে বলেছেন না নিজের কথা বলেছেন তাই নিয়ে নন্দীগ্রামের মানুষ ভোটগ্রহণের পর কটাক্ষ করেছে।

নন্দীগ্রামে নির্বাচনের দিন অধিকারী পরিবারের দাপট মানুষের কাছে পরিস্কার হয়ে গিয়েছিল। নন্দীগ্রাম বিধানসভায় মোট ৪০টা বুথে শুভেন্দু এজেন্ট দিতে মোমবাতি নিয়ে ঘুরেছে কিন্তু এজেন্ট খুঁজে পায় নি , এমনটাই স্থানীয় সূত্রে খবর। আসলে চিত্রটা ঠিক তাই নয়। যারা “দাদার অনুগামী” হিসাবে সেই সময় শুভেন্দু-র সাথে তৃণমূল ছেড়ে গিয়েছিল তারা পরবর্তীতে শুভেন্দু-র বিজেপিতে যোগদানটা মেনে নিতে পারে নি বলে জানিয়েছে স্থানীয় তৃনমূল। তারা ব্যাকফুটে চলে যাওয়াতে শুভেন্দু আর এজেন্টের খোঁজ করতে পারে নি। আর সেই কারণে শুভেন্দুর এজেন্টের জন্য অভাব পড়েছিল। বিরুলিয়ায় দুটো বুথে শুভেন্দু অনুগামীরা ভোটগ্রহণের আগের রাতে গ্রামে ঢূকে মানুষকে শাসিয়ে এসেছিল কিন্তু পরেরদিন সকাল থেকে মহিলারা যেভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দিয়েছে সেটা শুভেন্দুর কাছে মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে ওঠে। বিরুলিয়ার এই দুটো বুথ হিন্দু অধ্যুষিত এলাকা বলেই শুভেন্দু মুনাফা তুলতে গিয়েছিল কিন্তু শেষরক্ষা হয় নি।

এবার আমরা একটা ছোট্ট হিসাব প্রকাশ করছি মাত্র।এটা নন্দীগ্রামের মানুষের সাথে কথা বলে অনুমান করে লেখা, এর কোনটাই আমরা সত্যতা যাচাই করে দেখিনি।নন্দীগ্রামে ৮০ শতাংশ ভোট পড়েছে যার মধ্যে ৩০-৩২ % মুসলিম ভোট। সেখানে মুসলিম ভোট পড়েছে ২৭% বলে জানা যাচ্ছে, আর বাকি ৫৩% হিন্দু ভোট। তাহলে এই ৫৩% ভোট কি সবটাই সিপিএম ও বিজেপি পাবে? সেটা কিন্তু নয়। সিপিএম যদি ১০% পায় তাহলে বাকি থাকছে ৪৩%, আর সেই ৪৩% যদি দুজনের মধ্যে সমান ভাগ হয় তবে বিজেপি পাবে ২৬. ৫%। আর মুসলিম ভোটের ২৭%-এর মধ্যে যদি তৃনমূল ২৫ % পায় আর ২% সিপিএম পায় অঙ্কটা দাঁড়ালো সিপিএম (১০+২)=১২%, বিজেপি ২৬. ৫% এবং তৃনমূল (২৫%+ ২৬. ৫%) = ৫১. ৫%। এটা যদি সহজ অঙ্কে দেখা যায় তবে তৃনমূল ৫১-৫২% ভোট পাচ্ছে যেখানে বিজেপি পাচ্ছে ২৬. ৫% ভোট। কোন অঙ্কে শুভেন্দু চিৎকার করে বলছে মমতা ব্যানার্জি হারছে সেটা ঠিক পরিস্কার হচ্ছে না। আর এটা হবে না আঁচ করতে পেরেই অধিকারী যুধিষ্ঠির শিশির অধিকারী বলেছিলেন, মমতা আমার ছেলেকে শেষ করে দিতেই নন্দীগ্রামে প্রার্থী হয়েছে। যেদিন থেকে মমতা ব্যানার্জি ঘোষণা করেন তিনি নিন্দীগ্রামে প্রার্থী হবেন সেদিন রাত থেকেই গোটা অধিকারী পরিবারের ঘুম মাথায় উঠে গেছে। এরপর যদি কোন বড় বিপর্জয় ঘটে তবেই শুভেন্দু জয়ী হবে এটাও বলছে নন্দীগ্রামের ভোটাররা। হ্যাঁ, এটাও ঠিক যদি কোন মেশিনারি বিপর্জয় ঘটে তবেই শুভেন্দু জয়ী হবে বলে ধরা যেতে পারে। এখন সেটার জন্য ২রা মে পর্যন্ত অপেক্ষা করে থাকতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *