You cannot copy content of this page

আলোচনা সভার মধ্যে বিশ্ব মানক দিবস পালন করল বি আই এস

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ২৩শে নভেম্বর ২০১৯ : বি আই এস অ্যাক্ট দ্বারা প্রতিষ্ঠিত এবং ভারত সরকারের উপভোক্তা বিষয়, খাদ্য ও গণ বন্টন মন্ত্রকের অধীনস্থ ভারতীয় মানক ব্যুরো ভারতীয় মানক নিরুপন এবং তার অনুরূপতা নির্ধারণ, হলমার্কিং, নিরীক্ষণ সম্বন্ধিত কার্যগুলি পরিচালনার দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা। সমগ্র বিশ্বের মানকিকরণ ক্ষেত্রে কুশলী বিভিন্ন মানুষের আবদানকে স্বীকৃতি দিতে ১৪ই অক্টোবর দিনটাকে সারা পৃথিবীতে বিশ্ব মানক দিবস রূপে পানল করা হয়। মানকিকরণের ক্ষেত্রে পৃথিবী জুড়ে গড়ে ওঠা অগণিত কুশলীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টাকে সম্মান জানাতে ISO, IEC and ITU এই তিনটে আন্তর্জাতিক সংস্থার উদ্যোগে এই মানকিকরণ সম্বন্ধিত সংস্থাগুলির সদস্য হিসাবে অনষ্ঠানের মাধ্যমে এই দিনটিকে পালন করে।

২০শে নভেম্বর উক্ত মানক দিবসকে রাজারহাটের এক পাঁচতারা হোটেলে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পালিত হল এক আলোচনা সভা যার বিষয় বস্তু ছিল “ভিডিও মানক একটি বিশ্ব মঞ্চের সৃষ্টি করে”। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভা মা ব্যু কলকাতা শাখা আফিসের শাখা প্রধান সমীরণ কুমার দত্ত, পূর্বাঞ্চল নিরীক্ষাগারের প্রধান শুভদীপ বসু, ভা মা ব্যু-র অধিকর্তা অনিন্দ্য চক্রবর্তী সহ অনেকে। সমীরণ দত্ত বলেন, আমাদের দৈনন্দিন জীবনশৈলীতে মানকের ভুমিকার ওপর যেমন জোর দেওয়া প্রয়োজন তেমনই ভা মা ব্যু-র একটা গুরুত্ব থাকা প্রয়োজন।পূর্বাঞ্চলীয় নিরীক্ষাগারের প্রধান শুভদীপ বসু বলেন, কেমন ভাবে ভা মা ব্যু তার তৈরি জাতীয় মানক-এর সাহায্যে অপটিক্যাল ফাইবার নেটওয়ার্ক, উন্নত প্রযুক্তির দূরদর্শন এবং অন্যান্য আধুনিক ডিজিটাল প্রযুক্তির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।১৯ শতাব্দীতে ভিডিও মেকানিক্যালি হত কিন্তু আজ ফিলম বেসড হয়ে গেছে। থিয়েটার থেকে আজ জায়গা করেছে বেডরুমে।২০২০ সালের মধ্যে ইন্টারনেটের ৮০% উপভোক্তা হবে। ভা মা ব্যু-র MSCD-র ভারপ্রাপ্ত অধিকর্তা অনিন্দ্য চক্রবর্তী বলেন, আন্তর্জাতিক মানক সংস্থার ISO, IEC and ITU থেকে প্রাপ্ত বার্তাটি পাঠ করে শোনান। তিনি বলেন বর্তমানে ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে ভিডিও কত উন্নত হয়েছে এবং সারা বিশ্বের সাথে ভারতও পাল্লা দিচ্ছে। বর্তমানে মহাকাশ থেকে বাড়ির ঘরে এই ভিডিও পরিষেবা খুবই প্রয়োজন হয়ে পড়েছে যার গুরুত্ব দিনে দিনে বাড়ছে।

অনুষ্ঠানে দূরদর্শন কেন্দ্র কলকাতা, ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিসটিকাল ইনস্টিটিউট, সি-ড্যাক এবং ভিডিওনেটিক্স টেকনোলজিস প্রাঃ লিঃ সহ বহু ভা মা ব্যু সংস্থার সদস্যবৃন্দ। তাঁরা সকলে তাদের বক্তব্যের মাধ্যমে তুলে ধরেন কিভাবে ভিডিও মানক মানুষের দৈনন্দিন জীবনের বহু ক্ষেত্রে বিশেষত শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খেলাধুলা, মনোরঞ্জন ও সুরক্ষা ব্যবস্থায় একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। আগামী পাঁচ বছরে বিনোদন, বিভিন্ন সংযোগ মাধ্যম, অনলাইন গেমিং ও বিজ্ঞাপন ক্ষেত্রে কত ব্যাপক ও গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন-এর উদ্ভাবন হতে চলেছে। ভারতীয় মনোরঞ্জন ও সংযোগ শিল্পের অগ্রগতি ২০১৮ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে বার্ষিক ২৮% হারে বেড়ে ৪.৫ লক্ষ কোটি টাকাতে পৌঁছানোর সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *