You cannot copy content of this page

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মেনেই সোনারপুর উত্তর বিধানসভায় জয়হিন্দ হলে ফিরদৌসীর “দিদিকে বলো” অভিযান

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ৩১শে জুলাই ২০১৯ : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি নির্দেশ দিয়েছেন মানুষের সাথে জনসংযোগ বাড়াতে “দিদিকে বলো” অভিযান চালাতে। এই অভিযান রাজ্যের সব বিধানসভায় করতে হবে ২০২১ সালের নির্বাচনকে মাথায় নিয়ে। আজ জয়হিন্দ প্রেক্ষাগৃহে সোনারপুর উত্তর বিধানসভা অন্তর্গত রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার ১৭টা ওয়ার্ড ও ৫টা গ্রাম পঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতির সকল সদস্য ও জেলা পরিষদের সদস্যদের নিয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনের অয়োজন করেন। সভামঞ্চে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক ফিরদৌসী বেগম, সোনারপুর উত্তর বিধানসভার সাংগঠনিক প্রধান ও রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার সি আই সি (জল) নজরুল আলি মন্ডল, সোনারপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি প্রবীর সরকার, জেলা পরিষদ সদস্য রঞ্জন বৈদ্য, রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার সি আই সি (পূর্ত) বিভাস মুখার্জি, সি আই সি রিঞ্জিৎ মন্ডল, শেখ মুস্তাক, খলিল আহমেদ , গোপাল দাস, কানাই কর্মকার, শশধর হালদার। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিশ্বজিৎ দাস (নন্দ), পুরমাতা নমিতা দাস, নিতু দাস, দীপা ঘোষ, পুরপিতা সঞ্জিৎ চ্যাটার্জি, তরুণ কান্তি মন্ডল, অমরেশ সরদার, গোঁরাচাঁদ নস্কর, সাহজাহান গাজী সহ অনেকে। বিধায়ক মুখ্যমন্ত্রী তথা দলের হাইকমান্ডের নির্দেশ মেনেই বলেন, নেত্রী যেভাবে নির্দেশ দিয়েছেন সেভাবেই আমাদের নির্দিষ্ট ৫জন ব্যক্তিকে নিয়ে গোটা বিধানসভায় জনসংযোগ বাড়াতে হবে, মানুষের কথা ও অভিযোগ শুনতে হবে, কর্মীদের কথা ও অভিযোগ শুনতে হবে এবং তার পক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে।মানুষের অভিযোগ লিপিবদ্ধ করতে হবে এবং তার সমাধান করতে হবে।নেত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী ৩১শে জুলাই ও ১লা আগস্ট এই প্রচারের দিন নির্দিষ্ট করা হয়েছে। এরপর আমরা সকলকে নিয়ে বসে এই বিধানসভার বিভিন্ন এলাকার দিনপঞ্জী স্থির করা হবে এবং জানানো হবে।ইতিমধ্যে আমি খেয়াদহ ১ ও ২ গ্রাম পঞ্চায়েত এবং কামরাবাদ এলাকায় জনসংযোগ করা হয়েছে, আবার করতে হবে। নজরুল আলি মন্ডল বলেন মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করতে হবে, কেউ নিজের মত করে কাজ করতে পারবে না। দলকে রেখেই এগোতে হবে এটাই নেত্রীর নির্দেশ। সব ব্লক কমিটি, শাখা সংগঠনের প্রতিনিধিরা দলের অনুমতি নিয়ে কাজ করবেন এটাই নেত্রীর নির্দেশ।এছাড়া ১০০ দিনের মধ্যে যে ১০০০০ গ্রাম বা অঞ্চল পরিক্রমা করতে হবে সেখানে যে প্রতিনিধিরা যাবেন তাদের একটা খাতা তৈরি করতে হবে কবে কোথায় কার কাছে গিয়েছিলেন এবং কথার মধ্যে কি উঠে এসেছে। আমরা সকল প্রতিনিধিদের গতিবিধির উপর নজর রাখবো। রঞ্জন বৈদ্য বলেন, আমাদের শ্রদ্ধেয় দিদি যে নির্দেশ নিয়েছেন তা দিয়ে আগামীদিন আমাদের অনেক সাংগঠনিক সুবিধা হবে। বিভাস মুখার্জি বলেন, সকোলকে নিজেদের গোষ্ঠী এবং ইগো ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে নাহলে আগামীদিনে চরম বিপদ হতে চলেছে। একটা ফোঁড়া হলে যখন তা বাড়াবাড়ি হওয়ার আগেই ব্যবস্থা নিতে হয়। এখানে ফোঁড়াটা বিজেপি। প্রবীর সরকার বলেন, আমাদের সকলকে একসাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে। সামনে ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচন, রাজ্যে তৃণমূল ছিল, তৃণমূলই থাকবে, শুধু আমাদের এক হয়ে সংগঠনিক কাজ করতে হবে। মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে, মানুষের অভিযোগ শুনে ব্যবস্থা নিতে হবে, তাদের সমস্যার সমাধান করতে হবে।হলে উপস্থিত সকলকে “দিদিকে বলো” তুলে দেওয়া হয়। ছবি : অমিত দাস ও সমরজিৎ ব্যানার্জি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *