You cannot copy content of this page

নব নালন্দা স্কুলে বিভিন্ন বিভাগে “নালন্দাশ্রী” প্রতিযোগিতা শুরু হল

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ১০ই ডিসেম্বর ২০১৯ : প্রতিবছর ঠিক ডিসেম্বর মাসে নব নালন্দা গ্রুপের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয় “নালন্দাশ্রী”। একইভাবে এবছরও সাদার্ন এ্যাভিনিউতে স্কুলের প্রধান শাখা সদ্য নির্মিত নালন্দা ভবনে শুরু হল ইন্ট্রা স্কুল “নালন্দাশ্রী ২০১৯” প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় যেমন থাকছে নৃত্য, আবৃত্তি, আঁকা, ফুটবল ও ক্রিকেট, ব্যাডমিন্টন, টেবিলটেনিস, বিতর্কসভা, নাটকের মত বিভিন্ন বিভাগ।এছাড়া প্রতিবারের মত এবারও থাকবে নব নালন্দা মেলা। আজ নালন্দাশ্রী প্রতিযোগিতায় ছিল আবৃত্তি, নব নালন্দা স্কুলের বিভিন্ন শাখার ছাত্রছাত্রীরা এই প্রতিযোগিতায় তিনটে বিভাগে অংশগ্রহণ করে। বিভাগ “বি” ক্লাস ১ ও ২, বিভাগ “সি” ক্লাস ৩ ও ৪ এবং বিভাগ “ডি” ক্লাস ৫ ছাত্রছাত্রীরা অংশগ্রহণ করে। আবৃত্তিতে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, সুনির্মল বসু, সুকুমার রায় সহ বিভিন্ন কবিদের নির্বাচিত কবিতা আবৃত্তি করে শোনায় স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্কুলের প্রথম শ্রেনীর ছাত্রছাত্রীদের দিয়ে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করানো হয়।

উদবধনী ভাষণে বব নালন্দা স্কুলের প্রিন্সিপ্যাল অরিজিত মিত্র প্রথমেই বলেন আমি তো কোনদিনও ভাবিনি যে প্রদীপও রিমোট দিয়ে জ্বালানো যায়। বিজ্ঞান কতটা উন্নত হয়েছে।এরপর তিনি নালন্দাশী নিয়ে সকল অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, এই অনুষ্ঠান প্রতি বছর হয়ে থাকে। শুধু পড়াশুনো নয়, আমরা চাই পড়াশুনোর বাইরেও ছাত্রছাত্রীরা বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া বিভাগে পারদর্শী হয়ে উঠুক।এই স্কুল থেকে বিগতদিনে বহু ছাত্রছাত্রী আজকে সমাজে প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিত্ব হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে যা আমাদের স্কুলের নাম আরও উজ্জ্বল করেছে। আমরা ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে পিকনিক করে থাকি।

আজকে আবৃত্তি প্রতিযগিতায় ভাস্বতী দত্ত, অদিতি দত্ত ও দেবযানী ঘোষ বিচারকের ভূমিকা পালন করেন। বিচারক ভাস্বতী দত্ত ছাত্রছাত্রীদের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, সকলে বেশ ভাল বলেছে, তাঁর মধ্যে কেউ একটু বেশি ভাল বলেছে আবার কেউ একটু কম ভাল বলেছে। কিন্তু আমি সকলকে বলবো উচ্চারণের দিকে একটু বেশি নজর দিতে হবে।আমি প্রথম দিন থেকে এই প্রতিযোগিতার সাথে জড়িত।প্রতিবছর আবৃত্তি প্রতিযোগিতার কোন না কোন বিভাগে বিচারক হিসেবে উপস্থিত থাকি।একটা কথা না বলে থাকতে পারছি না ৯৯% ছাত্রছাত্রী কবিতা বেশ মুখস্থ বলেছে। আমরা আজও বই দেখে আবৃত্তি করি কিন্তু এই ছোট্ট ছোট্ট শিশুরা একেবারে কন্ঠস্থ বলে গেছে। আজই প্রতিযোগিতার সফল ছাত্রছাত্রীদের হাতে মানপত্র ও পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *