You cannot copy content of this page

বিজেপি মদতপুষ্ট এবিভিপির গুন্ডাবাহিনীর জে এন ইউ-তে তান্ডবের প্রতিবাদে সোনারপুরে নজরুলের নেতৃত্বে বিশাল মিছিল

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ৭ই জানুয়ারি ২০২০ : দক্ষিন ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের ডাকে সর্ব ভারতীয় তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি শ্রী অভিষেক ব্যানার্জী নির্দেশে, গতকাল দিল্লিতে JNU বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ঢুকে ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষিক-শিক্ষিকাদের উপর বিজেপি ও এবিভিপির গুন্ডাবাহিনী যেভাবে বর্বরোচিত হামলা করেছে তার প্রতিবাদে সোনারপুর উত্তর বিধানসভায় জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সহ সভাপতি, রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার সি আই সি ও সোনারপুর উত্তর বিধানসভার সাংগঠনিক প্রধান নজরুল আলি মন্ডলের নেতৃত্বে আজ এক বিশাল প্রতিবাদ মিছিল অনুষ্ঠিত হয় কামালগাজী স্পোর্টস কমপ্লেক্স থেকে গড়িয়া শীতলা মন্দির পর্যন্ত। এভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঢুকে বহিরাগতদের দিয়ে তান্ডব চালানো কতটা নক্করজনক তার প্রতিবাদে এই মিছিল। গুন্ডাবাহিনীর মুখে কালো কাপড় বাধা ছিল যাতে কেউ তাদের চিহ্নিত না করতে পারে। যখন বিজেপি দেখছে এন আর সি দিয়ে ভারতবর্ষের সাধারণ মানুষ থেকে সরকার ও বিরোধীদের দমানো যাচ্ছে না তখন এই রাস্তা অবলম্বন করেছে বিজেপি।

মিছিলে অংশগ্রহণ করেছেন স্বয়ং নজরুল আলি মন্ডল, সোনারপুর উত্তর বিধানসভার যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি পাপাই দত্ত, পৌরমাতা নমিতা দাস, নিতু দাস, পৌরপিতা তরুণ কান্তি মন্ডল, অভ্র মুখার্জি, সঞ্জিত চ্যাটার্জি, স্থানীয় নেতৃত্বদের মধ্যে গোপাল দাস, জয়ন্ত সেনগুপ্ত, শ্রীমন্ত নস্কর, বিশ্বজিত দাস, প্রদীপ চক্রবর্তী, পিকু নস্কর, সাম্যব্রত দত্ত সহ গোটা সোনারপুর পৌরসভা ও পঞ্চায়েত এলাকার সকল যুব তৃণমূল কর্মী ও নেতৃত্ব।এই মিছিল আগামী ৮ই জানুয়ারি বাম শ্রমিক সংগঠন সিটু-র ডাকা ভারত বনধের হুশিয়ারি দিয়ে দিল যে মানুষের অসুবিধা করে বনধ করা যাবে না।

প্রতিবাদ হবে কাজের মাধ্যমে কারণ মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ক্ষমতায় আসার পর থেকে কোন কর্মনাশা বনধকে প্রশয় দেন নি এবারও দেবে না। এই মিছিল থেকে বিজেপিকেও হুশিয়ারি দিয়ে দেওয়া হল বাংলায় ধর্মের বিভাজন করে রাজনীতি চলবে না। মানুষকে আতঙ্কিত করে ক্ষমতার অপব্যবহার করা চলবে না। এন আর সি-র ভয় দেখিয়ে মানুষকে বোকা বানানো যাবে না কারণ এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নাম মমতা ব্যানার্জি যিনি প্রতি মুহুর্ত মানুষের কথা ভাবেন, মানুষের উন্নয়ন নিয়ে ভাবেন, মানুষের শান্তির কথা ভাবেন, মানুষের খুশির কথা ভাবেন।পৌর নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে ততই তৃণমূল বিজেপিকে কোণঠাসা করতে মরিয়া হয়ে উঠছে।সারা বাংলায় পৌর নির্বাচনে বিজেপিকে এক ইঞ্চি জমিও ছাড়তে নারাজ তৃণমূল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *