You cannot copy content of this page

পানীয় জলের অপচয় রুখতে গ্রীনপার্ক শিক্ষাসদনের শিশুদের নিয়ে এক অভিনব প্রয়াস

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ১৮ই জুলাই ২০১৯ : ক’দিন আগে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন “জল ভরো, জল ধর” মাধ্যমে জল বাঁচান, জীবন বাঁচান। তারপরই সোনারপুর উত্তর বিধানসভার বিধায়ক ফিরদৌসী বেগম ও রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার উদ্যোগে “জল বাঁচান, জীবন বাঁচান” সাধারণের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় জয়হিন্দ আডিটোরিয়ামে।এই আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার জল দপ্তরের সি আই সি নজরুল আলি মন্ডল। সভায় উপস্থিত ছিলেন ৩৫ নং ওয়ার্ডের পুরপিতা গৌর হরি দাস কিন্তু তার ওয়ার্ডে আজও সর্বত্র পানীয় জল পৌঁছানোর কোন উদ্যোগ নেন নি বলে এলাকার মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা বলেছেন যেখানে জল পৌঁছায় নি সেখানে জল বাঁচাবো কথা থেকে। কিন্তু তারপরও সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বেড়েছে কোথায়। সেই রাস্তার ধারে টাইমকলের ট্যাপ দিয়ে অনবরত জল পড়েই যাচ্ছে। সাম্প্রতিক সোনারপুর উত্তর বিধানসভার ২৭ নং ওয়ার্ডে গ্রীনপার্ক অঞ্চলে জল বাঁচানোর আর্জি জানিয়ে গ্রীনপার্ক শিক্ষাসদনের প্রাইমারি স্কুলের শিশুদের নিয়ে এক মিছিলের আয়োজন করা হয়।প্রায় ১৫০ শিশু এই মিছিলে অংশগ্রহণ করে। এই মিছিলে অংশগ্রহণ করে স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষিকারাও, ছিলেন প্রধান শিক্ষক রবীন কর, শিক্ষক সৌমিত্র কর, সমাজসেবী গফফর হালদার সহ অনেকে।জল বাঁচানোর আবেদনের পক্ষে প্রতীকী হিসাবে প্রতিটা শিশুর হাতে একটা করে বালতি দিয়ে দেওয়া হয়। এরপরও কি সাধারণ মানুষ বিবেকবান হবেন? হলে ২০২০ সালে জলের সঙ্কট থেকে হয়তো এই রাজ্য রেহাই পাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *