You cannot copy content of this page

শুদেষ্ণা-র “শ্রাবনের ধারা” বুঝিয়ে দিল অ্যালজাইমার রোগটা কি এবং কখন হতে পারে এবং তার প্রতিকার

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ৩রা ফেব্রুয়ারি ২০২০ : নীলাভ রায় রায় একজন কর্পোরেট হাসপাতালে কর্মরত সফল নিউরো চিকিৎসক।বেশ কয়েকটি বিদেশী ডিগ্রি নিয়ে সজ্জিত, নীলাভ-র সাফল্য একটি পূর্বেই উপসংহার। কিন্তু বিশ্ব যেমন তাঁর প্রশংসা করছে, নীলাভ তার পরিবার এবং ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের কাছ থেকে তত দূরে সরে গেছে। বাস্তবে অনেক সময় তিনি অস্বীকারের পন্থা অবলম্বন করেন যতক্ষণ না তার মূল রহস্য প্রকাশ পায়।একটা সফল ভবিষ্যৎ গড়ার জন্য কেবল বর্তমানের উপস্থিতি গুরুত্বপূর্ণ।

তবে নীলাভ ডাঃ সরকারকে চিকিৎসা করতে করতে বুঝতে পেরেছিলেন যে অধ্যাপক আস্তে আস্তে সময়ের ব্যবধানে জড়িয়ে পড়ছেন। তিনি তাঁর এলোমেলো ৭০-এর দশকের কথা বলছেন, দার্জিলিংয়ে শুভা ও তার মধুচন্দ্রিমা এবনহ শুভাকে নিয়ে প্যারিসে ভ্রমণ মনে পড়ছিল।এই প্রতিটি অভিজ্ঞতায় তিনি শুভার সাথে ছিলেন বলে উল্লেখ করতে থাকেন, তবে রহস্যই সেখান থেকেই শুরু।শুভা, তাঁর স্ত্রী সম্ভবত সত্তরের দশকে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এবং সেদিনগুলিতে তাঁর অভিজ্ঞতাগুলি খুব কমই ভাগ করে নিতে পারতেন। শুভা তার ভুলগুলি চিহ্নিত করতে এবং তাকে সঠিক দৃষ্টিকোণে রাখার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করে, কিন্তু এতে কোনও ফল হয় নি।এই ধরনের রোগ অধিকাংশ একটু বয়স হলেই দেখা যায় যা ফুটে ওঠেছে সৌমিত্র চ্যাটার্জির অভিনয়ে। কিন্তু শুভাকে নিয়ে গোটা ছবিতে একটা ধোঁয়াশা থেকেই গেছে আসলে শুভা কে?

নীলাভ-র অধীনে একজন নতুন রোগী ডাঃ অমিতাভ সরকার ভর্তি আছেন।তিনি একজন সুপরিচিত ঐতিহাসিক,তবে ট্র্যাজেডিটি হ’ল তিনি আলজাইমারের বিরুদ্ধে ধীরে ধীরে তাঁর লড়াই হারাচ্ছেন, এটি একটি রোগহীন রোগ, যার কোনও নিরাময় বা বিপরীতমুখী রোগ নেই। ডঃ সরকারের সাথে ছিলেন এক যুবতী শুভা সরকার, যাকে নীলাভ তাঁর কন্যা হিসাবে ভুল করেছেন, কেবল ডঃ সরকারই তাকে সংশোধন করতে পেরেছিলেন, যিনি বলেছিলেন তিনি আমার স্ত্রী।তাদের বয়সের বৈষম্য মানুষকে উভয়ের মধ্যে সম্পর্কের ভুল বোঝাতে প্ররোচিত করে।

“শ্রাবনের ধারা” এই ছবি তিনটে মানুষের সঙ্কট নিয়ে। প্রথমজনের জন্য এটি একটি সচেতন সিদ্ধান্ত, দ্বিতীয়জনের জন্য এটি নিয়ন্ত্রণের বাইরে এবং তৃতীয়জনের জন্য এটি একটি সন্দেহজনক রূপান্তর। সিনেমাটি এই সংকট সমাধানের বিশ্লেষণ এবং পথ সম্পর্কে সমস্ত বলে দিয়েছে।

প্রদীপ চুড়িওয়াল প্রযোজিত এবং শুদেষ্ণা রায় ও অভিজিৎ গুহ পরিচালিত “শ্রাবনের ধারা” মুক্তি পেতে চলেছে ৭ই ফেব্রুয়ারি। ছবিতে অভিনয় করেছেন সৌমিত্র চ্যাটার্জি, গার্গী রায় চৌধুরী, পরম্ব্রত চ্যাটার্জি, বাসাবদত্তা চ্যাটার্জি, পদ্মনাভ দাশগুপ্ত, দামিনী বসু, বিমল মুখার্জি সহ অনেকে। ছবির সুরকার আশু-অভিষেক এবং গান গেয়েছেন ইমন চক্রবর্তী, রূপঙ্কর বাগচি, জয়তি চক্রবর্তী।গল্প লিখেছেন প্রবাসী চিকিৎসক শুভেন্দু সেন এবং চিত্রনাট্য পদ্মনাভ দাশগুপ্ত। প্রচারে কারপেডিয়াম কমিউনিক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *