You cannot copy content of this page

আমপানের দুর্যোগের মধ্যে অসহায় মানুষের পাশে পৌরমাতা পাপিয়া

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ২২শে মে ২০২০ : এই দশকের সব থেকে বড় দুর্যোগ ঘুর্নিঝড় আমপান। এই ঝড়ে তোলপাড় হয়ে গেছে গোটা রাজ্য। ক্ষয়ক্ষতির পরিমান এখনও করে উঠতে পারে নি রাজ্য সরকার।শহর থেকে গ্রামে বহু মানুষের বাড়ির ছাদ উড়ে গেছে, ভেঙেছে রাস্তার বিশাল বৃক্ষ, ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বহু গাড়ি, বিদ্যুৎ বিপর্যয় থেকে জল সঙ্কট। একইভাবে ক্ষয়ক্ষতিও হয়েছে রাজপুর সোনারপুরের ১ নং ওয়ার্ডের বহু গরীব মানুষের বাড়ি-ঘর থেকে বিদ্যুতের পোল।

রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের পৌরমাতা পাপিয়া হালদার এই মারাত্মক ঘুর্নিঝড় শুরু হওয়ার সাথে সাথে নিজের ওয়ার্ডে অসহায় মানুষের পাশে গিয়ে তাদের মানসিক বল বাঁড়াতে পৌঁছে গিয়েছিলেন।ঝড়ের সাথে বৃষ্টির মধ্যে তিনি রাস্তায় নেমে মানুষের এই করুণ অবস্থায় পাশে থাকার চেষ্টা করেন।তিনি মূলত পশ্চিমপাড়ার, আদিবাসী পাড়া, উত্তর বালিয়া অঞ্চল পরিদর্শন করেন। এখানে বেশ কিছু বাড়ির সামনে বিদ্যুতের তার ছিড়ে গেছে, গাছ পড়ে বাড়ি ভেঙেছে, বিদ্যুতের পোল ভেঙে যায়, গরীব মানুষের বাড়ির ছাদ উরে যায়, বেশ কিছু বেড়ার বাড়ি ভেঙে যায়, ছাদ উড়ে যায়। পৌরমাতা দুর্যোগের মধ্যে মানুষকে আশ্বাস দেন পৌরসভাগত যতটা সাহায্য করার তিনি করবেন।

ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকার মানুষ তাঁর কার্যালয়ে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হওয়ার কারণে অসহায় অবস্থার নিয়ে বলতে এলে তিনি বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য বিদ্যুৎ দপ্তরে ফোন করে যোগাযোগ করেন এবং যাতে বিদ্যুৎ সংযোগের কাজ দ্রুত হয় সে ব্যাপারে তদারকি করেন। এছাড়া অনেকে তাঁর কাছে জলের দাবি নিয়ে এলেও তিনি তা নিয়ে এলাকাবাসীর দাবি মেনে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে এগিয়ে আসেন। এমনকি দুর্যোগে অসহায় মানুষদের পৌরসভার দেওয়া ত্রিপল বিতরণ করবেন বলেও আশ্বাস দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *