You cannot copy content of this page

গড়িয়া সবলা মেলায় বিধায়কের স্টলে অসংখ্য মানুষ রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জমা দিল, সবার শির্ষে ৬ নং ওয়ার্ড

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ২৬শে নভেম্বর ২০১৯ : এইবার প্রথম সোনারপুর উত্তর বিধানসভায় সবলা মেলা অনুষ্ঠিত হল। প্রথম বছরেই একেবারে পাওয়ার প্লে দেখিয়ে দিল সোনারপুর উত্তর বিধানসভার বিধায়ক ফিরদৌসী বেগম। এই মেলা প্রথম বছরেই জনপ্রিয়তার তুঙ্গে। গড়িয়া স্টেশন এলাকায় মেলার চল আছে বহু বছর ধরেই কিন্তু গড়িয়ার মানুষ এধরনের মেলার সাক্ষী হয় নি কখনই। অধিকাংশ মেলাতে দেখা যায় চাক্কি ঘোরানো জুয়ার বোর্ড বসে আর নামে মাত্র কয়েকটা খাবার ও রকমারি জিনিষের স্টলের সাথে বাচ্চাদের কিছু রাইড থাকে। কিন্তু এবারের সবলা মেলায় রকমারি স্টলের সাথে যেমন ছিল সাংসদের স্টল তেমনিই ছিল বিধায়কের স্টলের সাথে প্রতিদিন প্রতিষ্ঠিত শিল্পীদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।এই শিল্পীদের অনুষ্ঠান শুনতে বা দেখতে গেলে রীতিমত টিকিট কেটে দেখতে হয়, আর সেখানে এই মেলায় তারা সঙ্গীত পরিবেশন করছেন বিনা টিকিতে। এবারের মেলায় উপস্থিত হয়েছেন মেলা উদ্বোধক মন্ত্রী সাধন পান্ডে, অধক্ষ্য বিমান ব্যানার্জি, মন্ত্রী গিয়াস উদ্দীন মোল্লা, সাংসদ মিমি চক্রবর্তী, সাংসদ শুভাশিস চক্রবর্তী, বিধায়ক ফিরদৌসী বেগম, বিধায়ক জীবন মুখার্জি, আই এন টি টি ইউ সি জেলা সভাপতি শিক্তিপদ মন্ডল, বারুইপুর পৌরসভার পৌরপ্রধান শক্তি রায় চৌধুরী, উপ পৌরপ্রধান গৌতম দাস, ঝন্টু ভদ্র, রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার পৌরপ্রধান ডাঃ পল্লব দাস, বিডিও (জয়নগর), ডঃ সৈকত মাঝি, বিডিও (সোনারপুর), সোনারপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি প্রবীর সরকার, বারুইপুর মহকুমা শাসক দেবারতি সরকার, বারুইপুর পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত জেলাশাসক, বিভিন্ন পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ও জেলা পরিষদের কর্মাধক্ষ্য সহ অনেকে। কিন্তু এই মেলায় দেখা যায় নি রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার যে ওয়ার্ডে মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে সেই ওয়ার্ডের পৌরমাতা দিপালী নস্কর বা তাঁর স্বামী শান্তনু নস্করকে। যদিও কোন দলীয় অনুষ্ঠানে তাঁরা দুজনেই কখনই উপস্থিত থাকেন না।দল কিন্তু এটাকে খুব ভাল চোখে দেখছে না।

কিন্তু সব থেকে যে ঘটনা বিধায়ককে সজাগ করে দিয়েছে তা হল অসংখ্য মানুষ যেমন বিনোদনের জন্য মেলায় এসেছেন তেমনিই তার থেকে বেশি মানুষ মেলায় এসেছেন অভিযোগ জানাতে। “দিদিকে বলো” কর্মসূচী মানুষের মনে সাহসের যে সঞ্চার করেছে তা এর থেকে পরিষ্কার। মানুষ “দিদিকে বলো” কর্মসূচীতে মুখের উপর অভিযোগ না জানাতে পারলেও এই মেলায় এসে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন বিভিন্ন ওয়ার্ডের পৌর প্রতিনিধির বিরুদ্ধে বা বিভিন্ন ওয়ার্ডের দলীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে।

অভিযোগের ভিত্তিতে সব থেকে উপরে রয়েছে রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের পৌরমাতা দিপালী নস্কর ও তাঁর স্বামী শান্তনু নস্কর। তাদের বিরুদ্ধে অধিকাংশ অভিযোগ লিখেছেন মানুষ। কখনও উন্নয়ন না হওয়া উঠে এসেছে আবার কোথাও কাটমানির মত অভিযোগ আবার কোথাও দুর্ব্যবহারের অভিযোগ আবার সময়ে প্রাপ্য পৌর পরিষেবা না পাওয়ার অভিযোগ যেমন রেসিডেনশিয়াল সার্টিফিকেট বা আয় সার্টিফিকেট বা চিকিৎসা করানোর সুবিধা পাওয়ার শংসা পত্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *