You cannot copy content of this page

যে খেতে ভালবাসে সে রান্না খাওয়াতেও ভালবাসে, তার জবাব ময়ুরীর “দেশি চুল্লা”

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ২২শে আগস্ট ২০১৯ : কলকাতায় রেস্তোরাঁর কিন্তু অভাব নেই, শুধু অভাব আছে আন্তরিকতার। আর সেটা পাবার জন্যই কিন্তু ভোজন রসিকরা বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় গিয়ে গিয়ে পরখ করে দেখতে চায় কোথায় তাদের মনের মত জায়গাটা খুঁজে পাওয়া যায় কিনা। রেস্তোরাঁ মানে কিন্তু শিততাপ নিয়ন্ত্রিত নয়, বা বেশ সেজেগুজে টেবিলের সামনে একজন এসে খাবারের তালিকা নিতে চলে এল বা খাবার পরিবেশন করে গেল তাও কিন্তু নয়। ভোজন রসিকদের কাছে রেস্তোরাঁ মানে স্বাদে-গন্ধে-গুনে-দামে একেবারে মন মাতানো আহার। যে আহার খেয়ে বারে বারে আসার কথা ভাবতে হবে। আর সেরকমই এক রেস্তোরাঁর সন্ধান পাওয়া গেল পাটুলি অঞ্চলে গ্রীন ভিউ রোডে মানে একেবারে পাটুলি ও ৪৫ নং বাসস্ট্যান্ডের কাছেই যার নাম “দেশি চুল্লা”।রেস্তোরাঁর মালকিন ময়ূরী সান্যাল একজন গৃহবধূ, কিন্তু খেতে ও খাওয়াতে ভালবাসেন তাই নিজের বাড়ির একতলাতেই একটা ১৫ জনের বসার আয়োজন করে খুলে ফেলেছেন মন ও পেটের মন পসন্দ খাজানা। সব থেকে বড় পাওনা এই “দেশি খাজানা”-য় তা হল বিভিন্ন স্বাদের পোলাও, এক কথায় বলা যেতে পারে পোলাও রানী।

অভিনেত্রী সায়ন্তনী ও মডেল জিৎ রামপাল “দেশি চুল্লা”-তে রকমারি খাবারের মাঝে

এছাড়া তো আরও খানা খাজানার সম্ভার তো আছেই। মনের মত আজয়ানি ঝিঙ্গা (বড় চিংড়ি), গন্ধরাজ ফিস টিক্কা, আচারি পনির টিক্কা, মালাই মুর্গ, মটন রোগান জোশ ছাড়াও অনেক ধরনের বন্ধুবান্ধব নিয়ে বিকেলের আড্ডায় টাইমপাস করার খাবার আইটেম। এবার যদি পুরো ফ্যামিলি নিয়ে খেতে হয় তবে তো বহুপদের মেনু খুলে যাবে টেবিলের সামনে। তন্দুরি রুটি, ভাত, নান, কুলচা, পরটা, আলুর সাথে কপি ও পনিরের পরটা, ডিমের লিফাফা, চিজ চিলি পরটা, মটন কিমা পোলাও, মটন পোলাও, চিকেন পোলাও, মালাবারি চিংড়ি পোলাও, পনির পোলাও। এবার তার সাথে কি দিয়ে খাওয়া যাবে? নিরামিষের আয়োজন যেমন আছে তেমন আমিষের ব্যবস্থাও আছে। পমফ্রেট, গন্ধরাজ ফিস টিক্কা, ভেড়ার মাংস, গোস্ত কা সিক, তাওয়া বোটি কাবাব,আবার একসাথে নন ভেজ কাবাবের সম্ভার। এখানেই শেষ নয়, যদি কমবো খেতে চান সে ব্যবস্থাও আছে এখানে। মাত্র ১০৫ টাকায় ভেজ কমবো, কি থাকছে সেই কমবোতে? আছে ডাল মাখানি, পনির মশলা, জিরে রাইস, গুলাব জামুন। আর কি চাই।ঠিক আছে এর থেকে একটু উচ্চমানের কিছু! আছে ১৫৫ টাকায় প্রিমিয়াম কমবো, থাকছে পনির পাসিন্দা, ডাল মাখানি, সবুজ মশলা, জিরে রাইস, সালাদ, গুলাব জামুন। এবার আসি নিরামিষে, প্রিমিয়াম চিকেন কমবোতে থাকছে ২ পিস চিকেন টিক্কা, ডাল মাখানি, চিকেন দো পেয়াজা ২ পিস, সবুজ মশলা, জিরে রাইস, সালাদ ও গুলাব জামুন মাত্র ১৮৫ টাকায়। বেসিক চিকেন কমবো ১৩৫ টাকায় শুধু সালাদ আর টিক্কা নেই।১৫৫ টাকায় মটন কমবোয় থাকছে মটন কশা ১ পিস,হলুদ ডাল, গারলিক নান ২ পিস, গুলাব জামুন আর প্রিমিয়ামে বাড়তি থাকছে মটন গুলাটি ২ পিস, সালাদ নিয়ে মাত্র ২০৫ টাকা। এছাড়া আছে ফিস কমবো, পোলাও কমবোতে মটন পোলাও, ধনেপাতা দিয়ে মুর্গি দাম মাত্র ২৪৫টাকা।এর সাথে আপনি নিতেই পারেন ভেজিটেবল কোলাপুরি, আমচুরি ভিন্ডি, কপি আদ্রাকি শিয়ালকোটি, ধনেপাতা কাঁচা লঙ্কা বাটা মুর্গি, মুর্গ ভরতা, রেলওয়ে মটন কারি, রারা মটন, কিমা মটর মশলা, তাওয়া মাছি মশলা সহ আরও অনেক।

আবার সিজলার মিলও আছে, সেখানে থাকছে মুর্গ টিক্কা, গোস্ত গালাউটি, ডাল মাখানি, বাটার চিকেন, জিরে পোলাও, গার্লিক নান মাত্র ৩৪৯ টাকা। ভাবা যাচ্ছে না তাই তো? এখানেই শেষ নয়, এখানে মিষ্টির সম্ভার আছে, আছে আইসক্রিম, আছে ককটেল সিঙ্গারার মত জিবে জল আনার মত আইটেম। সাম্প্রতিক “দেশি চুল্লা” উদ্বোধনে এসেছিলেন অভিনেত্রী সায়ন্তনী গুহ ঠাকুরতা ও মডেল জিৎ রামপাল। দুজনেই এত রকমারি খাবারের আয়োজন দেখে তো একেবারে হতবাক। জিৎ প্রথমবার শুনলো তন্দুরি চা, তন্দুরি চা-র সাথে চকলেট, তন্দুরি চা-র সাথে কেশরী। শুনেই সে তন্দুরি চায়ের প্রেমে পড়ে গেল কারণ তাতে আছে সেদো মাটির গন্ধ।চায়ের দাম ২০টাকা থেকে ৪৫ টাকা। পুজোর কথা চিন্তা করে আরও কিছু নতুন খাবারের মেনু হতে চলেছে। ময়ুরী জানান, আমি নিজে খেতে ভালবাসি আর তাই খাওয়াতেও ভালোবাসি। আমরা কাছাকাছি হলে হোম ডেলিভারি করার কথা ভেবেছি।তবে একটা কথা বলতে বাধ্য হচ্ছি সারা কলকাতায় এমন দামে যদি কোথাও এরকম পদের খাবার পান একবার এসে জানাবেন।আমি দাম দেখি না, আমি দেখি মানুষের তৃপ্তি ও গুনমান এবং স্বাদ। প্রচারে অ্যাঞ্জেলা ইভেন্টস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *