You cannot copy content of this page

‌”শাওয়ার্মা নেশন” স্বাস্থ্য ও স্বাদের মুলুক, পুজোর মুখে এক নতুন সন্ধান

‌অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ১৬ই সেপ্টেম্বর ২০২০ : লেবাননের রন্ধন–‌ঐশ্বর্যের সুখ্যাতি বিশ্বজোড়া। আর তা এখন মাতিয়ে দিচ্ছে কলকাতাকেও। লেবাননের খাবারের বিশেষত্ব তার মসলায়— বিশেষ করে জাতার, জলপাইয়ের তেল, রসুন আর লেবুর রস দিয়ে ভেড়ার মাংস আর সামুদ্রিক খাবার জারণে, শস্যদানার প্রাচুর্যে ও সবজিতে। এ সবের মিশেল তৈরি করে জিভে জল–‌আনা সব পদ। বিশেষ করে শাওয়ার্মার কথা তো ভোলবার নয়, যা সবার মন জয় করে নিয়েছে। এই একুশ শতকে স্বাদকোরকগুলোকে তুষ্ট করার পাশাপাশি স্বাস্থ্যের ব্যাপারটাও আমাদের সবচেয়ে বেশি খেয়াল রাখতে হয়। আর এই দুটো শর্ত খাবারের থালায় একসাথে হলে তো একেবারে সোনায় সোহাগা। স্বাস্থ্যকর একই সঙ্গে সুস্বাদু খাবারের স্বপ্ন এতদিনে কলকাতাবাসীর পূরণ হতে চলেছে। কারণ, আমাদের চিরকালীন প্রিয় শাওয়ার্মা নেশন তাদের সুখাদ্যের ডানা আরও মেলছে কলকাতায়। চিনার পার্কে প্রস্তুত পঞ্চম বিপণি।
শাওয়ার্মা নেশন, নামটাই আমাদের আকর্ষণ করার পক্ষে যথেষ্ট। কলকাতায় পা রাখার একেবারে প্রথম দিন থেকেই কলকাতাবাসী চেটেপুটে খেয়ে লেবাননের সুখাদ্যের জয়গান গাইছে।

ওদের শাওয়ার্মা রোল হচ্ছে তুলতুলে চিকেন–‌সেঁকা, যার মধ্যে ঠাসা সবজি আর সস। যে কোনো খাদ্যরসিকের কাছে আদর্শ পদ। মোড়কে দশ রকমের শাওয়ার্মা পাওয়া যায়। কলকাতা বিদেশি জিনিস গ্রহণ এবং তাকে সংস্কৃতির অঙ্গীভূত করার জন্য সুপরিচিত। আর খাবারদাবার এর একটা গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। এই কথাটা মাথায় রেখেই, ওরা পরিবেশন করছে মাইটি বার্গার, মিটি সাবমেরিনস, রাইস বোল, বিভিন্ন ধরনের স্যালাড, মিডল ইস্টার্ন গ্রিল, ইরানিয়ান চেলো কাবাব। বিবিধ পদের সমাহার শহরের ভোজনরসিকদের বেছে নেওয়ার সুযোগ প্রশস্ত করে দেবে।

নির্দিষ্টভাবে বলতে গেলে শাওয়ার্মা নেশন–‌এর আগের চার বিপণি কিউএসআর শৃঙ্খলের। পাইনউডের অন্দরসাজ, আলোক–‌উষ্ণতা আর খোলা রান্নাঘর। নিজেদের প্রিয় পদ কীভাবে তৈরি হচ্ছে ভোজনরসিকরা চাক্ষুষ দেখতে পাবেন। নতুন এই বিপণিতে গাড়ি রাখার জায়গাও আছে। দু ধরনের বসার আয়োজন— ভেতরে একসঙ্গে আটজনের আর খোলা জায়গায় ১২ জনের। বাইরে বাগানসজ্জা আর ভিতরে রঙিন বর্ণময়তা।
সুইগি–‌জোমাটোর সঙ্গে হাত মিলিয়ে অনলাইন ডেলিভারির মাধ্যমে খাবার পৌঁছনোর আয়োজনও আছে।

সুস্বাদু আরও কিছু পদের হদিশ নীচে:‌
• লেবানিজ চিকেন শাওয়ার্মা— ১৪০ টাকা (‌ছালছাড়ানো মুরগি, টাউম মানে রসুনের সস, মায়ো মেশানো সবজি)‌
• রাইস বোল— ১৭০ টাকা (‌নিচে গ্রেভি, ভাত, ফিলিংস)‌
• টার্কিশ শাওয়ার্মা বার্গার— ১৩০ টাকা বার্গার ব্রেড (‌নিচে)‌, স্পাইসি মায়ো, টাউম, মাস্টার মায়ো, বার্গার ব্রেড (‌ওপরে)‌
• লেবানিজ টাওক (‌অর্ধেক–‌ ১৬০, পুরো–‌ ২৯০)‌
• ইরানি চিকেন রাইস বোল (‌১৭০)‌
• আমেরিকান ক্রিসপি চিকেন (‌১৫০)‌
• ইজরায়েলি চিকেন (‌১৬০)‌
• লেবানিজ চিকেন (‌১৪০)‌
• হামাস বেইরুটি (‌নিরামিষ–‌ ১৪০, চিকেন–‌ ১৮০)‌
• চিকেন শাওয়ার্মা স্যালাড (‌১৯০)‌
• ক্রিসপি চিকেন স্ট্রিপস— ৬ টুকরো (‌২৬০)‌
• আরবি চিকেন দম বিরিয়ানি (‌অর্ধেক–‌ ১৬০, পুরো–‌ ২৬০)

‘‌সাংস্কৃতিক বিপ্লব ঘটাবে জাজ রোল থেকে শাওয়ার্মা রোল এবং আরও অনেক কিছু। চলুন এগোনো যাক আরও ভাল ও স্বাস্থ্যকর জীবনের উদ্দেশে এবং লেবাননের সুস্বাদু, অভিনব এবং স্বাস্থ্যকর ভোজ্যপদ সমৃদ্ধ ভূমধ্যসাগরীয় রন্ধনকে বাঁচাতে।’‌ বললেন সংস্থাকর্তা রাহুল অগ্রবাল। সুতরাং চলে আসুন, মাত্র ৭৫০ টাকায় কর সমেত দুজনে উপভোগ করুন লেবাননের অনির্বচনীয় সুখাদ্য। প্রচারে : লঞ্চার্স।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *