বিনোদন

শেষ প্রমাণের খোঁজ করছে তদন্তকারীরা, আদৌ হাতে পাবে কি?

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ৬ই ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ঃ          কলকাতা শহরের নামকরা শিল্পপতি প্রিয়াংশু সেন ওরেফে প্রিয় তার অসুস্থ স্ত্রীকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে দিয়ে শহরের অন্য এক বড়লোকের সুন্দরী মেয়েকে সবার অলক্ষ্যে ও অজান্তে বিয়ে করে। এর একটাই কারণ, অসুস্থ স্ত্রীর কাছ থেকে প্রিয়াংশু জীবনের আনন্দ-হাসি-গান সবই হারিয়ে ফেলেছিল।

কিন্তু প্রিয়াংশুর এই নতুন করে ঘর বাঁধার কর্মকান্ডে বাঁধা এসে দাঁড়ায়। ও কিছুতেই বুঝে উঠতে পারে না কি কারণে এই বাঁধা। যেখানে একমাত্র প্রিয়াংশু ছাড়া দ্বিতীয় কোন ব্যক্তি জানেনা যে প্রিয়াংশু তার নিজের স্ত্রীর আসল খুনি।এখানে শুরু হয় ছবির টানাপোড়েন। মামলা ওঠে আদালতে। চলতে থাকে বিচার। কিন্তু আসল প্রমাণের অভাবে বিচার যখন থেমে যায়, তখন ধুমকেতুর মতো এক মানুষের আবির্ভাব ঘটে প্রিয়াংশুর জীবনে। যে মানুষটি সবার অলক্ষ্যে ও অজান্তে শয়তান প্রিয়াংশুর মুখোশটি খুলে আইনের কাঠগড়ায় ওকে দাঁড় করিয়ে দেয়। প্রিয়াংশু বুঝতে পারে যে, সমাজে অর্থের প্রভাবে ও প্রভাব প্রতিপত্তির জোরে এবং চালাকির দ্বারা কোন সম্ভব হয় না। একমাত্র ন্যায়-নিষ্ঠা ও সত্যই মানব সমাজের আদর্শ রূপ।শেষ পর্যন্ত তদন্তকারীরা শেষ প্রমাণের খোঁজ করছে। পাবে কি? ওঁ সাইরাম ফিল্মস এন্ড প্রডাকশান নিবেদিত ওঁ রমেশ সাউ প্রযোজিত ছবি “শেষ প্রমাণ”।চিত্রনাট্য, সংলাপ ও পরিচালনায় সুবীর পাল চৌধুরীর ছবিতে অভিনয় করেছেন সম্বরণ চক্রবর্তী, বৃষ্টি হালদার, দেবলীনা কুমার, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, বিপ্লব চট্টোপাধ্যায়, বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী, দেবাশিষ গাঙ্গুলী, দেবিকা মিত্র, সুনীল ঘোষ, প্রদীপ ও রিদ্ধি সহ অনেকে। প্রচারে ঃ লাইমলাইট।

Leave a Reply