You cannot copy content of this page

করোনা মোকাবিলা করতে দফায় দফায় এলাকা জীবাণুমুক্ত করার কাজ করে চলেছেন পাপাই ও অরিন্দম

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ৫ই আগস্ট ২০২০ : করোনা যেভাবে থাবা বসিয়েছে গোটা রাজ্যে বিশেষ করে কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগণা, হাওড়া, হুগলী ও দক্ষিণ ২৪ পরগণায় মানুষ এবার আতঙ্কে ভুগছে। কিন্তু কিছু জায়গায় এরপরও সামাজিক দুরত্বের কথা উড়িয়ে দিয়ে মানুষ নিত্য জীবনযাত্রায় মগ্ন। স্থানীয় বাজার, দোকানপাটেও সেরকম কোন নিয়ম বিধি মানা হচ্ছে না। এর ফলে সংক্রমণ আরও বাড়ছে।

সোনারপুর ব্লকে করোনা সংক্রমণ এতটাই মারাত্মক আকার ধারণ করছে যে এখানকার নেতৃত্বরা তা মোকাবিলা করতে হিসশিম খাচ্ছে। প্রায় রোজই মানুষকে সুরক্ষিত রাখতে কোন না কোন এলাকা জীবাণুমুক্ত করতে হচ্ছে।ইতিমধ্যে সোনারপুর ব্লকের মধ্যে দুটো থানায় প্রায় ৫০০-র উপর মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে, মৃত্যুও হয়েছে বেশ কয়েকজনের। তার মধ্যেও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে জনপ্রতিনিধি থেকে স্থানীয় বেশ কিছু নেতৃত্ব।

রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডে একদিকে যেমন বিদায়ী পৌরপিতা সাধ্য মত চেষ্টা চালাচ্ছেন এলাকা জীবাণুমুক্ত করতে তেমনিই অপরদিকে গোটা ওয়ার্ডে জীবাণুমুক্ত করার পরিকল্পনা নিয়েছেন সোনারপুর উত্তর বিধানসভার যুব তৃণমূল সভাপতি পাপাই দত্ত ও গড়িয়া টাউন জয়হিন্দ বাহিনীর সভাপতি অরিন্দম দত্ত। করোনা সংক্রমণ থাকুক আর না থাকুক, প্রতিদিন গোটা ওয়ার্ডে কোন না কোন এলাকা জীবাণুমুক্ত করার দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়েছেন এই দুই নেতৃত্ব। এব্যাপারে আমরা কথা বলেছিলাম পাপাউ দত্ত-র সাথে, তিনি জানান, আমাদের বিধানসভার মূল দায়িত্বে রয়েছেন বিধায়ক ফিরদৌসী বেগম ও পৌরসভার বর্তমান প্রশাসকমণ্ডলীর সদস্য ও বিদায়ী সি আই সি নজরুল আলি মন্ডল।দুজনেই দিনরাত এক করে করোনা মোকাবিলায় নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের পাশে থেকে কাজ করছেন। আমরাও তাঁদের দুজনের সহযোগিতায় এই পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *