রাজনীতি

নির্বাচন কমিশন বিজেপির দলদাস হয়ে তৃণমূলকে ফাঁপরে ফেলতে চাইছে কারণ তারাও জানে তৃনমূলই প্রধান শত্রু

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ১৫ই মে ২০১৯ ঃ        হঠাৎ আজ সন্ধ্যাবেলায় তৃনমূল শিবিরে খবর এল কাল রাত ১০টার মধ্যে সব প্রচার শেষ করতে হবে। কালকের পর থেকে আর কোন দলই প্রচার করতে পারবে না। কিন্তু এটা কিরকম হল? নির্বাচন কমিশন এ কেমন বিচার করল? ১৯শে মে ভোট আর তার প্রচার বন্ধ ১৬ই মে মানে তিনদিন আগে? কোনদিনও হয়েছে এরকম? এই নির্বাচনের ৬টা দফা শেষ হয়েছে সেখানেও তো এই নিয়ম লাঘু ছিল না। নিয়ম অনুযায়ী ১৭ই মে শেষ প্রচার হওয়া উচিত। তাই মমতা ব্যানার্জি ১৭ই মে শেষ রোড শো করবেন বলে অনেক আগে থেকেই নির্ধারিত সূচীর মধ্যে ছিল। এবার সবটাই ভেস্তে গেল। হতাশায় ভুগছে কর্মী থেকে নেতারা। আসলে তা নয় নির্বাচন কমিশনকে চালাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যা আগে কখনও কোন প্রধানমন্ত্রীকে করতে দেখা যায় নি। এটা করারও তো কারণ আছে।পশ্চিমবঙ্গে মোদী বুঝেই গেছে তেমন একটা ভাল ফল নাও হতে পারে। হয়তো গতবারের থেকে একটু ভাল ফল হবে কিন্তু তাদের যে স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন আজকের নয়নের মনি মুকুল রায় সেরকমটা হবে না, মানে ২৩ থেকে ২৫টা আসন বাংলায় পাওয়া খুব সহজ হবে না। তার মধ্যে মেদিনীপুরে ভারতী ঘোষ আর দিলীপ ঘোষ তেমন কিছু করতে পারবে না। অন্যদিকে অর্জুন সিং, সৌমিত্র খাঁ আর অনুপম হাজরা যারা তৃনমূল থেকে দলছুট বা বহিষ্কৃত হয়ে এসেছা তারাও যে খুব ভাল ফল দিতে পারবে তেমনটাও মনে করছে না বিজেপি।অন্যদিকে লকেট চ্যাটার্জি বা জয় ব্যানার্জি কতটা আশানুরূপ ফল করবে তা নিয়েও বেশ সন্দেহে রয়েছে দল। বাকি রইল রাহুল সিনহা, শমিক ভট্টাচার্য আর চন্দ্র কুমার বসু, তারা যে কি করে তা বুঝে উঠতে পারছে না দল। মমতা ব্যানার্জি যেখানে যাচ্ছে সেখানেই মানুষের ঢল নেমেছে আর বিজেপির তরফে অমিত শাহ যেখানেই সভা করেছেন তাতে কথাও লোক হয় নি বলে মাথা গরম হয়ে গেছে (ঠাকুরনগর), কোথাও আর টি ও-র কারণে অমিত শাহ সভা করতেই পারে নি (বারুইপুর)। এখানে তো নরেন্দ্র মোদীর মাথা খারাপ হবেই কারণ পশ্চিমবাংলায় বিজেপির প্রধান শত্রু তৃনমূল আর তাকে আটকাতেই হবে, বাকি দলগুলোকে তালিকায় রাখছেই না বিজেপি। তবে বিজেপি একটা সর্ব ভারতীয় দল ভয় পাচ্ছে একটা আঞ্চলিক দলকে যদি মমতা ব্যানার্জির ৪২-৪২ ডাক বাস্তবে হয়ে যায় তবে তো লোকসভা উত্তাল করে তুলবে।তাই এবার নির্বাচন কমিশনকে মাঠে নামিয়ে দিল সুকৌশলে। কি যে হবে শেষ দফায় তা এখন দেখার।

Leave a Reply