You cannot copy content of this page

বিজেপি সরকার রাস্তার প্রতিবাদ বোঝে ভাল : অধীর চৌধুরী

বিশেষ প্রতিনিধি, এবিপিতকমা, পুরুলিয়া, ৬ই ডিসেম্বর ২০২০ : জয়পুর বিধানসভা কংগ্রেস এর ডাকে এবং পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরীর (MP, Leader of largest Opposition in Lok Sabha) উপস্থিতিতে পুরুলিয়ার জয়পুর শহর আজ এক মহা উন্মাদনার সাক্ষী।কেন্দ্র সরকারের বিভিন্ন জনবিরোধী নীতি ও রাজ্য সরকারের ধারাবহিক সার্বিক ব্যর্থতার প্রতিবাদে আজকে পুরুলিয়ার রাখ্ব্ড় মোড় হইতে জয়পুর আর-বি-বি হাই স্কুল পর্যন্ত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরীর নেতৃত্বে এক বিশাল মহামিছিল আয়োজিত হয় যেখানে হাজার হাজার কর্মী সমর্থকের উপস্থিতি পদযাত্রাটিকে আরও প্রাণবন্ত করে তোলে । মহামিছিল শেষে হাজার হাজার কর্মী সমর্থক এক বিশাল জনসভায় অংশগ্রহণ করেন।আজকের এই মহা প্রতিবাদ মিছিলে হাজার হাজার কর্মী সমর্থক এর সাথে পা মেলান প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী , পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার উপ দলনেতা ও পুরুলিয়া জেলা কংগ্রেস এর সভাপতি নেপাল মাহাতো মহাশয় সহ প্রদেশ ও জেলার অন্যান্য নেতৃত্ব বৃন্দ ।

আজকের এই বিশাল জনসভা তথা মহা প্রতিবাদ মিছিলে অধীর রঞ্জন চৌধুরী বলেন যে , কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের বিভিন্ন জনবিরোধী পদক্ষেপের বিরুদ্ধে আরও আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে । লকডাউনের মধ্যে বিপুল মানুষের কাজ হারানো এবং তারই মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার যে ভাবে শিক্ষা , কৃষি ও শ্রমক্ষেত্রে একের পর এক বিল পাশ করে সাধারণ মানুষের দুর্দশা বাড়িয়েছে তার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় ও রাজ্যস্তরে প্রস্তাবিত ও গৃহীত রাজনৈতিক কর্মসূচিকে রাজ্য ও জেলা স্তরে আরও জোরদার করতে হবে ।তিনি আর বলেন যে , তৃণমূল মানে নিজেদের মধ্যে মারামারি , খুনোখুনি আর কাটমানির ঝগড়া । তৃণমূল মানে দুরবস্থা ।

আজকের এই বিশাল জনসভা তথা মহা প্রতিবাদ মিছিলে পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ তোলেন । পুরুলিয়া জেলার পরিযায়ী শ্রমিকদের অবিলম্বে গরিব কল্যান যোজনার অন্তর্ভুক্ত করার দাবি তোলেন। অধীর রঞ্জন চৌধুরী দাবি তোলেন যে , বিড়ি শ্রমিকদের সমস্ত ওয়েল ফেয়ার স্কিমের অনুদান ও গৃহ নির্মাণের টাকা অবিলম্বে দিতে হবে।অধীর রঞ্জন চৌধুরী বলেন যে , আজ ভারতবর্ষ তথা পশ্চিমবঙ্গ বিপন্ন গণতন্ত্রের এক উদ্বেগজনক ও ভয়ংকর পরিস্থিতি।অধীর রঞ্জন চৌধুরী আরও বলেন যে , ভারতবর্ষে এবং পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্র আজ দুর্ভাগা । আর এই দুর্ভাগ্যের বিরুদ্ধে একমাত্র লড়াই করতে পারে জনসমাজ । তাই জনসমাজকে আরও বেশী করে উদ্বুদ্ধ করতে হবে , তাদের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ গড়ে তুলতে হবে যাতে তারা সামাজিক আন্দোলন , রাজনৈতিক প্রতিবাদ এবং মানবাধিকার রক্ষায় ব্রতী হয় ।

অধীর রঞ্জন চৌধুরী বাংলার মানুষকে অনুরোধ করেন যে , তারা যেন সাম্প্রদায়িক বিভাজন ও সাম্প্রদায়িক মানসিকতার দ্বারা পরিচালিত হয়ে আগামী বিধানসভা ভোটে অংশগ্রহণ না করেন ।অধীর রঞ্জন চৌধুরী বলেন যে , কংগ্রেস যুগ যুগ ধরে ধর্মনিরপক্ষেতার কথা বলেছে । আজ এই কঠিন সময়ে ভারতবর্ষ তথা পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্র দরকার । দরকার মৈত্রী ও সংহতির । আর তাই ভারতবর্ষ তথা পশ্চিমবঙ্গকে রক্ষা করতে দরকার কংগ্রেসকে ।

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী আরও বলেন যে পশ্চিমবঙ্গে ধর্মীয় মেরুকরণ এর বাইরে কংগ্রেস ও বাম জোট আগামী দিনের একমাত্র বিকল্প শক্তি , যে শক্তি তৃণমূল এর অপশাসন থেকে বাংলাকে মুক্ত করবে । পুরুলিয়ার শুধুমাত্র জয়পুর বিধানসভার আজকের এই জন জোয়ার প্রমান করছে যে জাতীয় কংগ্রেসই আগামী বিধান সভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে নির্ণায়ক শক্তিতে রূপান্তরিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *