You cannot copy content of this page

স্ত্রী সোমাকে নিয়ে বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখালেন সাংসদ শুভাশিস

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ১৩ই জুলাই ২০২০ : ধাপে ধাপে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার মানুষের উপর এই করোনা মহামারী অবস্থায় যেভাবে চাপ সৃষ্টি করছে তাতে মানুষ নাজেহাল। প্রথমে ভর্তুকি প্রায় তুলেই দিল কিন্তু তার পাশাপাশি গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করতে শুরু করে দিল। প্রতি মাসেই মানুষ গ্যাস নেওয়ার আগে আতঙ্কে থাকে এবার আবার দাম বাড়লো। এর সাথে মোদী সরকার জ্বালানি তেলের দাম লাগাতার বৃদ্ধি করে চলল।যেখানে সারা বিশ্বে অপরিশোধিত তেলের দাম একেবারে তলানিতে এসে ঠেকেছে সেখানে একমাত্র ভারতে দাম উর্ধমুখী। এর প্রতিবাদে এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি গোটা রাজ্যে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন যতক্ষন কেন্দ্র সরকার দাম না কমাচ্ছে।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির নির্দেশে নিজের হরিদেবপুরের বাড়ির সামনে কর্মীদের নিয়ে কেন্দ্র সরকারে থাকা বিজেপি-র এই জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখালেন রাজ্য সভার সাংসদ, দঃ ২৪ পরগণা জেলা তৃণমূলের সভাপতি ও দলীয় কোষাধ্যক্ষ শুভাশিস চক্রবর্তী, সাথে ছিলেন কলকাতা কর্পোরেশনের ১২২ নং ওয়ার্ড কোঅর্ডিনেটার তাঁর স্ত্রী সোমা চক্রবর্তী ও দলীয় কর্মীরা। এব্যাপারে সাংসদ জানান, করোনা মহামারীর কারণে সারা বিশ্বে যখন জ্বালানি তেলের দাম একেবারে তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে, সেখানে শুধুমাত্র ভারতে পেট্রোল ও ডিজেলের দাম আকাশছোঁয়া।যেখানে অপরিশোধিত তেল রাখার জায়গা নেই সেখানে কেন্দ্র সরকার মানুষের উপর চাপ বাড়াচ্ছে। কেন্দ্র সরকার কতটা অমানবিক যে জ্বালানি তেল বিক্রিতে কেন্দ্র সরকারের কর সব থেকে বেশি, সেটা এই পরিস্থিতিতে ছাড় দিয়ে মানুষকে স্বস্তি দিতে পারছে না। কেন্দ্র সরকারের কর ছাড় দিলে দাম দাঁড়াবে পেট্রোল ৩০টাকা ও ডিজেল ২৮টাকা।তিনি এমনও যোগ করেন রেশনে যে কেরোসিন তেল দেওয়া হয় তাও ছাড়েন নি প্রধানমন্ত্রী।

গরীব মানুষের জন্য সেই কেরোসিন তেল বিনা পয়সায় করতে পড়েন নি। তিনি ভাষণে দেশকে বলছেন “আচ্ছে দিন”। এই কি তবে সেই আচ্ছে দিন যেখানে মহামারীর সময় জরুরী পরিস্থিতিতে গরীব মানুষকে সাধারণ ভাবে জীবনযাপন করার জন্য যে কেরোসিন লাগে তাও পয়সা দিয়ে কিনতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *