You cannot copy content of this page

এন আর সি, সি এ এ নিয়ে বিরোধিতা করে গড়িয়ায় দু’জায়গায় মানব বন্ধন

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ৭ই ফেব্রুয়ারি ২০২০ : সারা দেশে এন আর সি এবং সি এ এ বিরোধিতা যেভাবে শুরু হয়েছে তাতে কেন্দ্র সরকারকে এন আর সি থেকে পিছু হটতে বাধ্য হচ্ছে।এই বিরোধিতা প্রথম শুরু করেন এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। মমতা ব্যানার্জিকে দেখে সারা দেশে অনেক রাজ্যই দেখাদেখি করে বিরোধিতা শুরু করে। মমতা ব্যানার্জি প্রতিসময় দাবি করেছেন যারা দেশে বসবাস করছেন তাদের নাগরিকতার প্রমাণ দিতে হবে না। কেন্দ্র সরকার আগে দায়িত্ব নিয়ে অনুপ্রবেশ বন্ধ করুক। মমতা ব্যানার্জি গোটা রাজ্যে লাগাতার এন আর সি, সি এ এ-র বিরোধিতা করার নির্দেশ দিয়েছেন। সাম্প্রতিক গোটা রাজ্যে এন আর সি ও সি এ এ-র বিরোধিতা করে মানব বন্ধনের ডাক দিয়েছিলেন। সেই নির্দেশ মেনেই গোটা রাজ্যের মত সোনারপুর উত্তর বিধানসভায় বিধায়ক ফিরদৌসী বেগমের উদ্যোগে বিভিন্ন জায়গায় এই মানব বন্ধন করা হয়।

গড়িয়াতেও একইভাবে মানব বন্ধন করা হয় গড়িয়া স্টেশন রোডের দুই প্রান্তে। গড়িয়ে স্টেশন রেল ব্রিজের নীচ থেকে বালিয়া মোড় পর্যন্ত স্লোগানের সাথে মানব বন্ধনে উপস্থিত ছিলেন গড়িয়া টাউন তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি বিভাস মুখার্জি, সোনারপুর উত্তর বিধানসভার তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি পাপাই দত্ত, ২ নং ওয়ার্ডের পৌরপিতা অমরেশ সরদার, ৫ নং ওয়ার্ডের পৌরপিতা তরুণ কান্তি মন্ডল, ৩ নং ওয়ার্ডের পৌরমাতা অশোকা মির্ধা, গড়িয়া আই এন টি টি ইউ সি আহ্বায়ক পিন্টু দেবনাথ, হকার্স কর্ণারের সভাপতি শ্রীমন্ত নস্কর, দেবাশিস (বুয়া) চৌধুরী, হিমাংশু দে, শিবু কর, তপন মন্ডল, গণেশ প্রসাদ, রনজিত দাস, বাপ্পা সহ গড়িয়া স্টেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডের নেতৃত্ব ও কর্মীরা।

কিন্তু একই সাথে গড়িয়া ঢালাই ব্রিজ থেকে বৈশাখী সংঘ পর্যন্ত মানব বন্ধন করেন রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের পৌরমাতা পাপিয়া হালদার। এই মানব বন্ধনে প্রায় সকলের হাতে এন আর সি এবং সি এ এ সংক্রান্ত বিভিন্ন পোস্টারে স্লোগান চোখে পড়ে। এই মানব বন্ধনে উপস্থিত ছিলেন মনোরঞ্জন মির্ধা, রনেন সরদার, রামু কর্মকার, তীর্থ প্রতিম বিশ্বাস সহ ওয়ার্ডের নেতা ও কর্মীদের।

পৌরভোটের প্রাক্কালেও এই মানব বন্ধনে দেখা গেল না ৬ নং ওয়ার্ডের পৌরমাতা দিপালী নস্কর বা তাঁর স্বামী ৬ নং ওয়ার্ডের সম্পাদক শান্তনু নস্করকে। এই নস্কর দম্পতি দলীয় কোন অনুষ্ঠানে গত পাঁচ বছর ধরে দেখা তো যায় নি উপরন্তু ওয়ার্ডের দলীয় কর্মী ও নেতাদের সাথে সু সম্পর্ক পর্যন্ত নেই।এই ওয়ার্ড এবার সাধারণ (মহিলা) হওয়াতে এই ওয়ার্ডের বিভিন্ন অনুষ্ঠান ছাড়া গড়িয়া স্টেশনে বেশ কিছু অনুষ্ঠানে যাকে দেখা যাচ্ছে এই ওয়ার্ডের ভাবি তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে তাকেও দেখা যায় নি। যদিও দল ঠিক করে নি কিন্তু তিনি নিজেই সব জায়গায় প্রচার করে বেড়াচ্ছেন যে তিনি কোন উচ্চ নেতৃত্বের মাধ্যমে এবার এই ওয়ার্ডের টিকিট পাকা করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *