You cannot copy content of this page

তবে কি ২০২০ সালে কি বদলাতে চলেছে গড়িয়া টাউন সভাপতি? কে হতে পারে পরবর্তী টাউন সভাপতি এই নিয়ে গড়িয়া রাজনীতিতে জোর জল্পনা

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ২৬শে নভেম্বর ২০১৯ : গড়িয়া টাউন তৃণমূল সভাপতি নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে দলের একাংশের মধ্যে চলছে অসন্তোষ কিন্তু সেভাবে কিছুই করা যাচ্ছিল না কারণ সেই সময় দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা সভাপতির পদে ছিলেন তৃণমূল দলত্যাগী মন্ত্রী ও মেয়র শোভন চ্যাটার্জি।শুধু শোভন চ্যাটার্জি নয়, তৎকালীন জেলা সভাপতি শোভন চ্যাটার্জির সাথে ক্ষমতার বেশ বাড়বাড়ন্ত ছিল যিনি পরবর্তীতে শোভন চ্যাটার্জি ঘনিষ্ট হয়ে ওঠেন পিঙ্কু (সঞ্জীব) সরকার।তৎকালীন জেলা সভাপতির অনুগামী বলে পরিচিত ছিলেন গড়িয়া টাউন সভাপতি বিভাস মুখার্জি আর সেই সুবাদে এই পিঙ্কু সরকারের তিনি ঘনিষ্ট ছিলেন বলে গোটা সোনারপুরে শোনা যায়।প্রথমবার টাউন সভাপতি করেন খোদ মমতা ব্যানার্জি তবে তখন সবটাই মৌখিক হয়েছিল কিন্তু পরের দুবার টাউন সভাপতির অ্যাপয়েন্টমেন্ট দিয়েছেন তৎকালীন জেলা সভাপতি বলেও জানা যায়। দুবারের সি আই সি হওয়ার অবদান সেই জেলা সভাপতি শোভন চ্যাটার্জি বলেও শোনা যাচ্ছে। কিন্তু এখন তো আর সেই দাপুটে নেতা তথা সেই সময়ের জেলা সভাপতি বর্তমানে আর দলেই নেই। আর জেলা সভাপতি হিসাবে শোভন চ্যাটার্জি না থাকার ফলে পিঙ্কু সরকারের সেই ক্ষমতাও আর নেই এবং তার সাথে গড়িয়া টাউন সভাপতি বিভাস মুখার্জি-র টাউন সভাপতি কি এবার বদলানোর কোন সম্পর্ক আছে? দলীয় সূত্রে খবরে প্রকাশ দল এবার একটা সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে যিনি টাউন সভাপতি থাকবেন তিনি পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবেন না বলে শোনা যাচ্ছে। যদি এই সিদ্ধান্ত হয় তবে সেক্ষেত্রে বিভাস মুখার্জিকে যেকোন একটা পদ ছাড়তে হবে, তবে সেটা কোন পদ হতে পারে? তবে সেক্ষেত্রে কোন পদ বেছে নেবেন বিভাস মুখার্জি? এছারা বিভাস মুখার্জির বিরুদ্ধে তাঁর দলের এক নেতৃত্বস্থানীয় সোশ্যাল মিডিয়ায় যেভাবে মুখ খুলেছেন তা সকলের নজরে এসেছে।তবে দল অনেক জায়গায় নতুন মুখ আনতে চলেছেন বলেও জানা যাচ্ছে। সেক্ষেত্রেও বিভাস মুখার্জি কি তবে টাউন সভাপতির পদ খোয়াতে চলেছেন? এমন শোনা যাচ্ছে একেবারে তৃণমূলের মাদার সংগঠনের কাউকে এই টাউন সভাপতির দায়িত্ব দিতে চাইছে না দল। তবে সেই পদে কাকে আনতে চাইছে তা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা, হাইকমান্ডের সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে সবাই। এছাড়া সামনের বছরে নির্ধারিত সময়ে রাজপুর সোনারপুর পৌরসভা নির্বাচন, দল সেখানেও অনেক ওয়ার্ডে নতুন মুখ আনতে চলেছে বলে জানা যাচ্ছে। এর মধ্যে বাদ যাচ্ছে না গড়িয়া স্টেশনের ৬টা ওয়ার্ডও। তবে কি গড়িয়া স্টেশনের ৬টা ওয়ার্ডের মধ্যেও প্রার্থী বদল হতে চলেছে? নতুন মুখ বলতে দলের তরফে কিছু জানা যায় নি কারা সেই নতুন মুখ হতে পারেন। এর মধ্যে ৬ নং ওয়ার্ড একরকমের নিশ্চিত হয়েই গেছে। তাছাড়া আরও দুই বা তিনটে ওয়ার্ডেও প্রার্থী বদলাতে পারে কারণ দল মনে করছে পুরানো প্রার্থী থাকলে দল ভাল ফল করবে না, এমনও হতে পারে ওয়ার্ড হাতছাড়া হবে তৃণমূলের বলে ভাবছে দল। যদিও কোনটাই এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি সবটাই শোনা যাচ্ছে। ওয়ার্ড পুনর্বিন্যাসের পর সবটাই পরিষ্কার হবে বলে ভাবছে দলের অনেকে। এব্যাপারে সোনারপুর উত্তর বিধানসভার সাংগঠনিক প্রধান নজরুল আলি মণ্ডলকে প্রশ্ন করলে তিনি এব্যাপারে কিছুই সেভাবে জানেন না বলে জানান। তিনি বলেন দল যা সিদ্ধান্ত নেবে সে ভাবেই কাজ হবে। দলের বাইরে কোন ব্যক্তি নয়। এছাড়া দলের প্রটোকল মেনে সকলকে যোগ্য সম্মান দিতে হয়।যেখানে বিধায়ক একটা বিধানসভার চেয়ারপার্সেন সেখানে তাঁকে সম্মান জানানোটা যোগ্য আচরণের মধ্যে পরে, কোন বিধানসভায় বিধায়ককে বাদ দিয়ে কিছু হতে পারে না, সব দলীয় অনুষ্ঠানে বিধায়কের মতামতের একটা গুরুত্ব থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *