রাজনীতি

লোকসভা নির্বাচনে বড় মার্জিনের জয় চাইতে জনসংযোগ বাড়িয়ে চলেছে বর্ধমান পুরসভার প্রাক্তন পুরপিতা প্রদীপ রহমান

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, বর্ধমান, ১৫ই এপ্রিল ২০১৯    ঃ          সামনে লোকসভা নির্বাচন আর তার পরেই বর্ধমান পুরসভার নির্বাচন। সদ্য বর্ধমান পুরসভার মেয়াদ শেষ হয়েছে তাই এই পুরসভার প্রতিটা তৃণমূলের পুরপ্রতিনিধিরা লোকসভা নির্বাচনকে তাদের প্রচারের হাতিয়ার করে তুলেছে। একই সাথে তৃণমূল প্রার্থীর যেমন প্রচার হচ্ছে তেমনই প্রচার চলছে নিজেদের কারণ লোকসভা নির্বাচন শেষ হলেই পুরসভা নির্বাচনের ঘন্টা বাজবে। বর্ধমান পুরসভার বিদায়ী পুরপ্রতিনিধিদের মধ্যে প্রচারের দিকে বলতে গেলে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন ১৮ নং ওয়ার্ডের তৃণমূলের পুরপিতা প্রদীপ রহমান। তিনি যেমন বিভিন্ন সময় উৎসবের আয়োজন করেন তেমনই এলাকার সমস্যাকে প্রাধান্য দিয়ে উন্নয়নটাও করেন। প্রদীপ রহমান কখনও বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রার্থী পরিচিতি নিয়ে গিয়ে বোঝাচ্ছেন, কখনও আবার মাইক হাকিয়ে প্রচার করছেন, কখনও বা নিজেই নিজের এলাকার পুরুষ ও মহিলাদের নিয়ে কর্মী বৈঠক করছেন। প্রদীপ রহমানের কথায় বর্ধমানে প্রধান বিরোধী বিজেপি। আর সেই বিজেপিকে রুখতেই ভোটের অনেক আগে থেকেই এই প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছি। এখন প্রার্থী তালিকা ঘোষণার পর থেকেই কাজ আরও জোরকদমে চলছে। আমার ১৮ নং ওয়ার্ডের সমস্ত কর্মী ও বিভিন্ন এলাকার নেতৃত্ব এক হয়ে প্রচার চালাচ্ছি কারণ আমাদের প্রার্থী ডঃ মমতাজ সংঘমিতা খুবই কাজের মানুষ। তিনি গতবার সাংসদ হওয়ার পর বর্ধমানে অনেক উন্নতি হয়েছে। ফ্লাই ওভার থেকে শুরু করে বিভিন্ন এলাকায় প্রচুর উন্নয়ন করেছেন। তিনি কাজের মানুষ তাই এবারও তাকেই জয়ী করতে হবেই। এখনও প্রার্থীর র‍্যালি হয়নি তবুও আমি নিজের উদ্যোগে বাড়ি বাড়ি গিয়ে হ্যান্ড নোট বিলি করছি তিনি কি কি উন্নয়ন করেছেন এবং এবার জয়ী হলে তিনি আরও কি কি উন্নয়ন করার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন তা মানুষের কাছে গিয়ে তুলে ধরছি। আমার ওয়ার্ড থেকে এইটুকু বলতে পারি ভাল মার্জিনে জয়ী হবে আমাদের তৃণমূল প্রার্থী ডঃ মমতাজ সংঘমিতা।তিনি আরও বলেন ঘরোয়া প্রচারে কোন বাড়ি ছাড়া যাবে না। সব বাড়িতে গিয়ে উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দিতে হবে।

Leave a Reply