You cannot copy content of this page

ডুরান্ডের প্রথম ম্যাচে খেলল মহঃ স্পোর্টিং কিন্তু জিতল মোহনবাগান

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ২রা আগস্ট ২০১৯ : ডুরান্ড কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে গ্রুপ “বি” মোহনবাগান বনাম মহঃ স্পোর্টিং -এর ৯০ মিনিটের ম্যাচে মোহনবাগান ২-০ গোলে জিতল।ডুরান্ডের উদ্বোধনী ম্যাচের সূচনা করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ও ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। বৃষ্টির জন্য মুখ্যমন্ত্রী সেভাবে কিছু বলতে পারেন নি।তাঁরা দুজনেই দুদলের খেলোয়াড়দের সাথে আলাপ পর্বের শেষে সরাসরি খেলাতে চলে যেতে হয়।প্রথমার্ধে মোহনবাগানের স্প্যানিশ সালমা খেলার ৩ মিনিটে হেড করে গোল দেয়, পরের গোল আসে ২১ মিনিটে।এরপর অধিকাংশ সময় মোহনবাগানের পায়ে বল ছিল।কিন্তু মহঃ স্পোর্টিং যে একেবারে খারাপ খেলেছে তা কিন্তু বলা যাবে না। গোটা ম্যাচে মোহনবাগান যে দুটো সুযোগ পেয়েছে তা কাজে লাগিয়েছে, দুটো গোলই হেড করে জালে পাঠায় সেই ১০ নং জার্সি সালমা।অন্যদিকে মহঃ স্পোর্টিং পাঁচটা সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারে নি।দুটো ওপেন চান্স মিস করেছে মহঃ স্পোর্টিং, তবে মোহনবাগানের দক্ষ গোলকিপার শীলটন থাকায় বাকি তিনটে গোল হয় নি। ম্যাচের তুল্লমুল্ল বিচারে কোচ ভিসুনা সেই ইউরোপিয়ান ধাঁচে বেশি খেলিয়েছে। দুপক্ষের একজন করে খেলোয়াড়কে আঘাতের কারণে মাঠের বাইরে যেতে হয়।কিন্তু ম্যাচের আমেজ কিছুটা বিঘ্নিত করেছে শ্রাবণের বৃষ্টি। পদে পদে বৃষ্টি আসার ফলে খালায় কিছুটা ছন্দপতন ঘটে। খেলার পর সাংবাদিক সম্মেলনে মহঃ স্পোর্টিং-এর কোচ সুব্রত ভট্টাচার্যকে না পাওয়া গেলেও টিম ম্যানেজার বিলাল আহমেদ ও সহকারি কোচ উপস্থিত ছিলেন। দুজনেই দলের প্রথম খেলার ব্যাপারে বেশ খুশি।তাঁরা জানান, দলে তিনজন বিদেশী খেলোয়াড় থাকার ফলে কিছুটা বোঝাপড়ার সমস্যা দেখা গেছে যা আগামী ম্যাচগুলোতে ভাল হবে। এছাড়া তাঁরা এটাও বলেন খেলার শুরুতে গোল হতে খেলোয়াড়রা অনেকটাই ভেঙে পড়ে তবুও বলবো ভাল খেলেছে, ওরা দুটো সুযোগ পেয়েছে যা কাজে লাগিয়েছে কিন্তু আমরা পাঁচটা সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারিনি। সবে তো শুরু পরের খেলাগুলোতে দল অনেকটা স্থিতি হবে। মোহনবাগানের কোচ ও দুটো গোল করা সালমা বলেন, আমাদের আরও খেলায় মন দিতে হবে, যদিও আমরা ভাল খেলেছি তবে মহঃ স্পোর্টিং আমাদের থেকে সুযোগ বেশি পেয়েছে।কোচ ভিসুনা বলেন দলে তিনজন স্প্যানিশ খেলোয়াড় থাকায় আমার সুবিধা হয়েছে।তবে ভারতীয় খেলোয়াড়রা ভাল খেলেছে। প্রথম খেলা বলে নিজেদের মধ্যে ছন্দ সেভাবে না থাকলেও পরবর্তী ম্যাচে সেই ছন্দ ফিরে আসবে। ছবি : বিশ্বজিত সাহা ও চুনী পাল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *