You cannot copy content of this page

হোপ ফাউন্ডেশনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হলিউড তারকা জেরেমি আইরন কলকাতায়

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ১২ই নভেম্বর ২০১৯ : জেরেমি আইরনের নাম কে না শোনে নি, অবশ্যই যারা ইংরাজি সিনেমা দেখেন তাঁরা আরও বেশি চেনেন এই অভিনেতাকে। একসময়ের বিখ্যাত ছবি রিভার্সাল অফ ফরচুন, দি মিশন, মার্জিন কল, দি লায়ন কিং, দি ম্যান হু নিউ ইনফিনিটি অভিনয় খ্যাত অস্কারজয়ী অভিনেতা জেরেমি আইরন হোপ ফাউন্ডেশনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ঘুরে গেলেন কলকাতা। সাম্প্রতিক মধ্য কলকাতার এক পাচতাঁরা হোটেলে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা হোপ ফাউন্ডেশন আয়োজিত সমাজের অবহেলিত শিশু নিয়ে আলোচনা ও সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করেছিল।হোপ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে জীবন ও সাফল্যের সংজ্ঞা কি এবং কি করলে জীবনে সফল হওয়া যাবে জানতে চায় সাবির, তারক, মিলি, শিল্পারা শানিত শব্দ প্রয়োগে সহজ সুন্দর ভাষায় প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর দেন তিনি। জীবনে তিনি অনুপ্রাণিত হন কার দ্বারা প্রশ্নের জবাবে অভিনেতা জেরেমি উত্তর দেন প্রশ্নকর্তার দিকে তাকিয়ে, আমার অনুপ্রেরণা আপনি, আপনারা সবাই।

শিল্পী বলেন, সাফল্যের স্বপ্ন শুধু দেখলে হবে না,যে কাজে সাফল্য আসতে পারে সেই কাজটাকে ভালোবাসতে হবে,অল্প সময়ে জীবন ছন্দ নিয়ে তাঁর বক্তব্য উপস্থিত সবার হৃদয় জয় করে নেয়।এই অনুষ্ঠানের আর এক অতিথি মোরিন ফরেস্ট উপস্থিত হোপ ফাউন্ডেশনের কলকাতা সার্কেলের ডিরেক্টর গীতা ভেঙ্কাডাকৃষ্ণণের প্রশংসা করে বলেন, সমাজসেবার কাজে গীতার সহযোগিতা ভোলার নয়। এছাড়াও ছিলেন প্রখ্যাত নির্দেশক অনীক দত্ত। প্রচারে : ক্যানডিড কমিউনিকেশন।জেরেমি বলেন জীবনের মূল হল দারিদ্রতা দূর করা, সমাজসেবা করা ও অসুস্থ্যকে সুস্থ্য করে তোলা। সমাজে অনেকে অত্যাচারিত, নিপীড়িত ও অবহেলিত তাদের পাশে দাঁড়ানো হল মানুষের মূল ধর্ম হওয়া উচিত যা হোপ ফাউন্ডেশন করে চলেছে। আমি মৌঋণ ফরেস্টকে অনেকদিন ধরে চিনি, তাঁর কাজের আমি একজন বড় ভক্ত। সারাদিন ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করে। ছবি : রাজেন বিশ্বাস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *